শার্শা সদর ইউনিয়নের প্রার্থীতা ফিরে পেলেন কবির উদ্দীন আহম্মেদ তোতা

স্টাফ রিপোর্টার: আসন্ন ইউপি নির্বাচনে শার্শা সদর ইউনিয়নে প্রার্থীতা ফিরে পেলেন আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকা মার্কার চেয়ারম্যান প্রার্থী কবির উদ্দীন আহম্মেদ তোতা সিনিয়র জেলা নির্বাচন অফিসার হুমায়ন কবির আবেদনের শুনানি শেষে এ আদেশ দেন। রোববার বিকালে বিষয়টি নিশ্চিত করে জানিয়েছেন কবির উদ্দীন তোতা।

এর আগে গত ৪ নভেম্বর ঋণখেলাপির অভিযোগে চেয়ারম্যান প্রার্থী কবির উদ্দীন আহম্মেদ তোতার মনোনয়নপত্র বাতিল করেন রিটার্নিং অফিসার। এরপর তিনি সিনিয়র জেলা নির্বাচন অফিসারের কাছে আপিল করলে তিনি তা মনজ্ঞুর করেন। এরই প্রেক্ষিতে তিনি প্রার্থীতা ফিরে পেলেন।

উপজেলা নির্বাচন অফিসার মেহেদী হাসান জানান, বাংলাদেশ ব্যাংক প্রধান কার্যালয় থেকে ঋণখেলাপির সংক্রান্ত একটি পরিপত্র পাই। যার সুত্র নং- সিআইবি-৫(১)/­২০২১-৪৫৭১। এতথ্যের ভিত্তিতে তার প্রার্থীতা বাতিল করা হয়েছিলো এবং আপিল করার জন্য তাকে তিনদিন সময় দেওয়া হয়। তিনি সিনিয়র জেলা নির্বাচন অফিসারের কাছে আবেদনের মাধ্যামে তিনি প্রার্থীতা ফিরে পান।

প্রার্থীতা ফিরে পেয়ে কবির উদ্দীন আহম্মেদ জানান, আমি অত্যান্ত আনন্দের সহিত জানাচ্ছি বাংলাদেশের সফল মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার স্বাক্ষরিত শার্শার সদর ইউনিয়নে নৌকা মার্কার প্রার্থী হয়ে মনোনয়ন পত্র জমা দেই। এর পরে যাচাই বাছায়ের দিনে ঋণখেলাপির কারন দেখিয়ে আমার মনোনয়ন বাতিল করে উপজলা নির্বাচন অফিসার। পরবর্তিতে আমি আমার প্রার্থীতা ফিরে পেতে সিনিয়র জেলা নির্বাচন অফিসার বরাবর আপিল করলে তিনি তা মন্জুর করেন। আর এই রায়ের পরিপত্র শার্শা নির্বাচন কমিশনার অফিসের সহকারী সিরাজুল ইসলাম, ও ডাটা এন্ট্রিকারী শামিম হোসেন কবির উদ্দিন তোতার হাতে তুলে দেয়।

আওয়ামী লীগ কর্মী বাবলুর রহমান বলেন, শার্শার একটি পক্ষ কবির উদ্দিন তোতাকে নির্বাচন থেকে সরে যেতে গভীর ষড়যন্ত্রের মাধ্যে মনোনায়ন বাতিল করে। আজ তার নির্বাচন করার বৈধতা ঘোষনায় ষড়যন্ত্রকারীরা অখুশি।
শার্শা নির্বাচন কমিশনার মেহেদী হাসান বলেন, কবির উদ্দিন তোতার মনোনায়ন বাতিল করা হয় ঋন খেলাপীর কারনে। তিনি আপিল করে নির্বাচন করার রায় পেয়েছে। তার প্রার্থীতা এখন বৈধ । তার নির্বাচন করতে আর কোন বাধা নাই।

আরো পড়ুন :  হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ নলছটি কমিটি উন্মোচন