দৈনিক আস্থা | সত্য সমাজের দর্পন
আজ শনিবার | ৬ই জুন, ২০২০ ইং
| ২৩শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ১৩ই শাওয়াল, ১৪৪১ হিজরী | সময় : রাত ১:৩৭

মেনু

হলবনিয়ার মানবপাচারকারী বুইশ অধরা:সক্রিয় রয়েছে সিন্ডিকেট

হলবনিয়ার মানবপাচারকারী বুইশ অধরা:সক্রিয় রয়েছে সিন্ডিকেট

কক্সবাজার প্রতিনিধি
বৃহস্পতিবার, ২১ মে ২০২০
৮:৪৯ অপরাহ্ণ
237 বার

কক্সবাজারের টেকনাফ বাহারছড়ার দক্ষিণ শিলখালী হলবনিয়ার হাছন আলীর ছেলে নুর হোসেন(৪৮) প্রকাশ বুইশ’র বিরুদ্ধে মানবপাচারের গুরুতর অভিযোগ পাওয়া গেছে।সুত্রে জানা গেছে,সাগর পথে মালেশিয়ায় মানবপাচার করে নুর হোসেন প্রকাশ বুশের একটি পাচারকারী সিন্ডিকেট।

রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে নারী পুরুষ সংগ্রহ করে অধৈধ ভাবে সাগর পথে পাচার করে হাতিয়ে নিচ্ছে মোটা অংকের টাকা।স্হানীয়দের বৈধ পথে মালয়েশিয়া নেওয়ার আশ্বাস দিয়ে, প্রথম পাসপোর্ট ও মোটা অংকের টাকা নিয়ে সাগর পথে অবৈধভাবে যেতে জোর করে বলেও তার বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ পাওয়া গেছে।

অনুসন্ধানে জানা যায়, নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন বলেন,স্হানীয় জাহাজ পুরা এলাকার আজিম আলীর ছেলে রহিম উল্লাহ(২২),মাহবুব আলমের ছেলে হাবিব উল্লাহ(২৭)বিগত ৩ মাস আগে মালয়েশিয়া গিয়ে এখন নিখোঁজ রয়েছে বলে এলাকার সচেতন মহল জানিয়েছেন।

এক সময়ের জেলে ছিলো নুর হোসেন প্রকাশ বুইশ।সাগর পথে অবৈধ মানবপাচার করে বর্তমানে কোটি টাকার মালিক।দুইটা ইজ্ঞিন নৌকা ও রয়েছে তার।

আরো পড়ুনঃমায়ের অপমানের বদলা নিলেন দুই বছরে পরে!

এসব নৌকা মানব পাচারের কাজে ব্যবহার করে বলে একাধিক সুত্রে জানা গেছে।গত ইউপি নির্বাচনে মেম্বার পদে নির্বাচন করে লক্ষ লক্ষ টাকা খরচ করে বুইশ কিন্তু হেরে যায়।একজন নৌকা মহল্লা কিভাবে এতো টাকা খরচ করে বলে এলাকা বাসীর মুখে মুখে হয়।

নুর হোসেন প্রকাশ বুইশ একটি দালালের সাথে সিন্ডিকেট করে অহরহ রোহিঙ্গাদেরকে মালয়েশিয়ায় পাচার করছে করছে বলে একাধিক সুত্রে প্রকাশ।স্হানীয় কয়েকজন বলেন,কুতুপালং ক্যাম্প থেকে একাধিক রোহিঙ্গাদের হলবনিয়া নৌকার ঘাট থেকে রোহিঙ্গা মালয়েশিয়া পাচার করে বর্তমানে কোটি টাকার মালিক বুইশ।

আরো পড়ুনঃ‘ভ্যাকসিন অপরাধী’ বিল গেটসকে গ্রেপ্তারের দাবি!

এ বিষয়ে জানতে নুর হোসেন প্রকাশ বুশের মুঠোফোনে একাধিকবার কল দেওয়া হলে সংযোগ না পাওয়াই তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।স্হানীয়রা জানান,বুইশ একজন পেশাদার মানবপাচারকারী সে দিন দিন বেপরোয়া হয়ে উঠেছে এবং তাকে আইনের আওতায় আনতে স্হানীয়রা জোর দাবী জানিয়েছেন।

দৈনিক আস্থা/ইমু

আপনার মন্তব্য লিখুন