Bangladesh

‘আমি এখন কাদের নিয়ে বাঁচব’

মা ময়না বেগম ও বোন মুক্তা খানমকে নিয়ে ঢাকায় থাকেন রিফাত। দুদিন আগে বেড়াতে গিয়েছিলেন গ্রামের বাড়ি। আজ সোমবার সকালে তাদের নিয়ে ঢাকা ফিরছিলেন। নিজে বাঁচলেও লঞ্চ ডুবে মারা যান মা ও বোন। মিটফোর্ট হাসপাতালের মর্গের সামনে শোকে পাগল প্রায় রিফাত বলেন, ‘লঞ্চ ডুবে আমি মরে গিয়েও যদি ওরা (মা-বোন) বেঁচে থাকত। আমি এখন কাদের নিয়ে বাঁচব।’

এ সময় রিফাতকে সান্ত্বনা দেন তার মামা বাবুল মোল্লা। তিনি বলেন, ‘তোমাকে বেঁচে থাকতে হবে। আমরা তো আছি।’ পুরান ঢাকার শ্যামবাজারের কাছে বুড়িগঙ্গায় লঞ্চডুবির এ ঘটনাটি সম্পূর্ণ পরিকল্পিতভাবে ঘটানো একটি হত্যাকাণ্ড বলে মন্তব্য করেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।

তিনি বলেন, ‘আজকের ঘটনাটি অন্যান্য ঘটনা থেকে একেবারেই আলাদা। আমি সিসিটিভি ফুটেজ দেখেছি এবং দেখার পরে আমার কাছে মনে হয়েছে, ঘটনাটি ইচ্ছাকৃতভাবে ঘটানো হয়েছে। এটা মনে হচ্ছে একটা হত্যাকাণ্ড।’

ডাক্তার দেখাতে এসে বুড়িগঙ্গায় ডুবে মরলেন পরিবারের ৩ জন

ঘটনা তদন্তে একজন যুগ্ম সচিবের নেতৃত্বে সাত সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে এবং কমিটিকে এক সপ্তাহের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে জানিয়ে খালিদ মাহমুদ বলেন, ‘তদন্তের পরে আমরা প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা নেব। সরকারের পক্ষ থেকে প্রত্যেক পরিবারকে দাফনের জন্য ১০ হাজার টাকা এবং প্রতিটি পরিবারকে ক্ষতিপূরণ হিসাবে এক লাখ ৫০ হাজার টাকা প্রদান করা হবে।’

640.jpg