আইন-আদালত

থানায় বিস্ফোরণ: কেটে ফেলতে হলো রিয়াজের কব্জি

রাজধানীর মিরপুরের পল্লবী থানায় বিস্ফোরণের ঘটনায় আহত সিভিলিয়ান রিয়াজের বাম হাতের কব্জি কেটে ফেলতে হয়েছে।

এর আগে, বুধবার সকাল ৭টার দিকে থানায় বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এতে চার পুলিশ সদস্যসহ সিভিলিয়ান রিয়াজ আহত হন। বিস্ফোরণে ক্ষতবিক্ষত হয়ে যায় রিয়াজের হাতের কব্জি। 

ঢামেকের জরুরি বিভাগের আবাসিক সার্জন (আরএস) ডা. মোহাম্মদ আলাউদ্দিন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, রিয়াজের বাম হাতের কব্জি পর্যন্ত কেটে ফেলা হয়েছে। এছাড়া তার ডান হাতের একটি আঙুল ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় সেটিও রাখা যায়নি। তার পেটে বড় ধরনের ইনজুরি আছে।

তিনি আরো বলেন, পুলিশ সদস্য রুমির পায়ে ও হাতে ইনজুরি আছে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, তারা সবাই স্প্লিন্টারের আঘাতে আহত হয়েছেন।

ঘটনার পরপরই আহতদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়। এর মধ্যে দুজন প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে চলে গেছেন। একজনকে চক্ষু হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আর আহত শিক্ষানবিশ উপ-পরিদর্শক (পিএসআই) রুমি ও সিভিলিয়ান রিয়াজ ঢামেকে চিকিৎসাধীন আছেন।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-কমিশনার (মিডিয়া) ওয়ালিদ হোসেন জানান, রাতে পুলিশের অভিযানে তিনজন সন্ত্রাসীকে আটক করে থানায় আনা হয়। তাদের কাছে থাকা ওয়েট মেশিন সদৃশ একটি বস্তুই ভোরের দিকে বিস্ফোরিত হয়। থানার দোতলায় ইন্সপেক্টরের (অপারেশন) রুমে এই বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এতে ওসিসহ চার পুলিশ সদস্য ও একজন সিভিলিয়ান স্টাফ আহত হন। সন্ত্রাসীদের কাছে দুটি অস্ত্রও পাওয়া যায় বলে জানিয়েছে পুলিশ।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পল্লবী থানার এক এসআই জানান, একটি আগ্নেয়াস্ত্র ও চারটি ককটেলসহ একজন সন্ত্রাসীকে আটক করার পর তাকে থানায় আনা হয়। ওই সন্ত্রাসীর সঙ্গে থাকা ককটেলগুলো ডিফিউজ করতে বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিটকে কল করা হয়। ককটেল ডিফিউজ করতে গিয়ে বিস্ফোরিত হয়ে পাঁচ জন আহত হয়েছেন।

আহতরা হলেন- পল্লবী থানার ইন্সপেক্টরের (অপারেশন) ইমরান (৪৮), এসআই সজীব (৩০), পিএসআই অঙ্কুশ (২৮), পিএসআই রুমি (২৮)। এছাড়া রিয়াজ (২৮) নামে একজন আহত হয়েছেন।

থানার গেটে প্রবেশাধিকার সংরক্ষিত করা হয়েছে। থানায় আগতদের গেটে জিজ্ঞাসাবাদ করে ভেতরে ঢুকতে দেয়া হচ্ছে। তবে গণমাধ্যমকর্মীদের থানার ভেতরে ঢুকতে দেয়া হচ্ছে না। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে আলামত সংগ্রহ করছে। পুলিশ ছাড়াও র‍্যাব, ডিবি ও অ্যান্টি টেররিজম ইউনিট সেখানে রয়েছে।

দৈনিক আস্থা/মীর