আন্তর্জাতিক

কুয়েতে প্রবেশ নিষিদ্ধ বাংলাদেশসহ ৭ দেশের নাগরিকদের

করোনা ভাইরাসের কারণে বাংলাদেশসহ সাত দেশের নাগরিকদের কুয়েতে প্রবেশ নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবারে দেশটির সংবাদমাধ্যম কুয়েত টাইমস জানিয়েছে, ১ আগস্ট থেকে এই নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হবে।

কুয়েতে প্রবেশ নিষিদ্ধ থাকা দেশগুলো হলো- বাংলাদেশ, ফিলিপাইন, ভারত, শ্রীলংকা, পাকিস্তান, ইরান এবং নেপাল।

এই সাত দেশের নাগরিক ছাড়া অন্যসব দেশের নাগরিকরা ১ আগস্ট থেকে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট শুরু হলে কুয়েতে যেতে পারবেন।

তবে যাত্রীদের অবশ্যই স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে এবং পিসিআর সনদ বাধ্যতামূলক থাকতে হবে। সূত্র: আরব নিউজ

২২ দেশের সঙ্গে বিমান চলাচলে সবুজ সংকেত পেলো জর্ডান

২২ দেশের সঙ্গে বিমান চলাচলে সবুজ সংকেত আন্তর্জাতিক ফ্লাইটের জন্য ধীরে ধীরে বিমানবন্দর চালু করতে যাচ্ছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ জর্ডান। করোনা মহামারির কারণে কয়েক মাস ধরেই দেশটিতে সব ধরনের আন্তর্জাতিক ফ্লাইট বন্ধ ছিল।

সরকারি কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, আগামী ৫ আগস্ট থেকে পুনরায় দেশটির বিমানবন্দরগুলো চালু হতে যাচ্ছে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের বিমান সংস্থাকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে যে, আন্তর্জাতিক ফ্লাইটের জন্য জর্ডানের বিমানবন্দরগুলো প্রস্তুত আছে।

সিভিল এভিয়েশন রেগুলেটরি অথরিটির চেয়ারম্যান হাইথাম মিসতো জর্ডানের টিভি চ্যানেল আল মামলাকাকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।নির্দিষ্ট কিছু দেশের জন্য জর্ডানের বিমানবন্দরগুলো খুলে দেওয়া হচ্ছে। তবে এক্ষেত্রে অবশ্যই স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী সব ধরনের স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা হবে বলে জানানো হয়েছে।

জর্ডানের তথ্য বিষয়ক মন্ত্রী আমজাদ আল আদাইলেহ জানিয়েছেন, স্বাস্থ্যগত বিভিন্ন বিধি-নিষেধ অনুযায়ী দেশের বিমানবন্দরগুলো ধীরে ধীরে খুলে দেওয়া হবে। তবে কিছু নির্দিষ্ট দেশের ফ্লাইট চলাচল করতে পারবে।

এক্ষেত্রে ২২টি দেশকে সবুজ সংকেত দেওয়া হয়েছে। এসব দেশের সঙ্গে জর্ডানে বিমান চলাচলের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। যেসব দেশ থেকে জর্ডানে বিমান আসা যাওয়া করতে পারবে সেগুলো হলো- অস্ট্রেলিয়া, কানাডা, চীন, সাইপ্রাস, ডেনমার্ক, এস্তোনিয়া, জর্জিয়া, জার্মানি, গ্রীনল্যান্ড, আইসল্যান্ড, আয়ারল্যান্ড, ইতালি, লাটভিয়া, লিথুনিয়া, মালয়েশিয়া, মাল্টা, মোনাকো, নিউজিল্যান্ড, নরওয়ে, সুইজারল্যান্ড, তাইওয়ান এবং থাইল্যান্ড।

সবুজ সংকেত পাওয়া এসব দেশ থেকে যেসব পর্যটকরা জর্ডানে ভ্রমণ করবেন তাদের ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে না বলে জানানো হয়েছে। তবে তাদের অবশ্যই ভ্রমণের আগে নিজেদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করাতে হবে। এছাড়া সবুজ সংকেত পাওয়া দেশগুলোর তালিকা প্রতি দু’সপ্তাহ পর পর পরিবর্তন হতে পারে বলেও জানানো হয়েছে।

এর আগে ২১ মার্চ থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য কারফিউ ঘোষণা করা হয় জর্ডানে। সরকারের এক মুখপাত্রের বরাতে আল জাজিরা জানায়, ২১ মার্চ সকাল সাতটা থেকে শুরু হবে এবং পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত জারি থাকবে।

টেলিভিশনে প্রচারিত ভাষণে ওই মুখপাত্র আমজাদ আদাইলেহ বলেন, এর আগে রাষ্ট্রীয় জরুরি অবস্থা জারির ধারাবাহিকতায় দেশজুড়ে এই কারফিউ জারি করা হয়েছে। জরুরি অবস্থা জারির ফলে সেনা নিয়ন্ত্রিত কারফিউ ও অন্যান্য পদক্ষেপ গ্রহণের পথ সুগম হয়েছে। তিনি বলেন, জনগণ নির্দেশনা মেনে না চলায় অনির্দিষ্টকালের জন্য কারফিউ জারি করা হয়েছে।

main-ads.jpg

জরুরি পদক্ষেপ হিসেবে জর্ডানে সেনাবাহিনী রাজধানী আম্মান সারা দেশ থেকে বিচ্ছিন্ন করেছে। এছাড়া এক প্রদেশ থেকে অন্য প্রদেশে যাতায়াত নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এতে করে লকডাউন হয়ে পড়েছেন ১ কোটি মানুষ। এখন পর্যন্ত জর্ডানে করোনায় আক্রান্ত ৮৫ জন।