বিনোদন

সুশান্তের বাড়ি থেকে বেরিয়ে আসার সময় মহেশ-রিয়ার চ্যাট ফাঁস!

রিয়া যখন সুশান্তের বাড়ি থেকে বেরিয়ে গিয়েছিলেন তখন দিনটি ছিলো ৮ জুন। বের হওয়ার পরে পরিচালক মহেশ ভাটের সঙ্গে কথা হয়েছিল রিয়ার। সুশান্তের সঙ্গে সম্পর্কের বিষয়ে তিনি মহেশ ভাটের সঙ্গে অনেক কথাই ভাগ করে নিয়েছিলেন। সেই কথোপকথনের ভাইরাল হওয়া চ্যাট নিয়ে শুরু হয়েছে জল্পনা।

চ্যাট থেকে ইঙ্গিত মিলছে যে রিয়া নিজেই সুশান্তের সঙ্গে সম্পর্ক ভাঙ্গেন। রিয়া ৮ জুন সুশান্তের নির্দেশে তার বাড়ি ছেড়ে চলে যান। রিয়া এমনকি তার বিবৃতিতেও বলেছিলেন যে, সুশান্তকে ছেড়ে তিনি কষ্টেই ছিলেন। সেই সময় সুশান্তের বোন মিতু সিংকে তার বাড়িতে আসতে বলা হয়েছিল। তবে রিয়া চক্রবর্তীর হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট ফাঁস হয়ে গিয়েছে। সেখানে তিনি জানিয়েছেন যে তিনি সুশান্তকে নিজেই ছেড়ে যাচ্ছেন।

৮ ই জুন সুশান্তের বাড়ি ছাড়ার পরে রিয়া মহেশ ভাটকে চ্যাটে লেখেন, আয়শার মন ভারী তবে স্বস্তিও পেয়েছে। আপনার সঙ্গে আমার শেষ কথোপকথনটি আমার চোখ খুলল। আপনি আমার দেবদূত, আপনি তখন ছিলেন এবং আজও রয়েছেন। 

রিয়া চক্রবর্তী এবং মহেশ ভাটের কথোপকথন

একই সঙ্গে রিয়ার এই বার্তায় মহেশ ভাট যে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন। রিয়ার জবাবে তিনি লিখেছিলেন – এখন আর পেছন ফিরে তাকাবে না। যেটা হওয়ার সেটাকেই করো। তোমার বাবাকে আমার ভালবাসা দিও। এখন তারা খুব খুশি হবেন। এই কথোপকথনে বোঝা যাচ্ছে যে রিয়ার বাবাকে নিয়েও তাদের মধ্যে আগে কথা হয়েছে।

এই চ্যাটে রিয়া বারবার মহেশ ভাটকে ধন্যবাদ জানান। তিনি তাকে বলেন যে মহেশ তাকে অনেক সাহায্য করেছেন। রিয়া মহেশকে লিখেছেন- আপনি আমাকে আবার মুক্তি দিয়েছেন, আপনি আমার জীবনে ঈশ্বরের মতো।

কী এমন পরিস্থিতিতে, রিয়া সুশান্তের বাড়ি ছেড়ে চলে গিয়েছিলন ৮ ই জুন? কী ঘটেছিল সেদিন? এই দিকটি এখন সিবিআই তদন্ত করবে। এই মুহুর্তে রিয়ার এই চ্যাট জল্পনা আরো বাড়ালো। দীর্ঘদিন ধরে জানানো হয়েছিল যে সুশান্তের হতাশার কারণে রিয়া নিজেই খুব ভেঙে পড়েছেন। সুশান্তের মৃত্যুতে তিনি খুবই আঘাত পেয়েছেন। তিনি সুশান্তকে ছাড়তেও প্রস্তুত ছিলেন না। তবে এখন মহেশ ভাটের সঙ্গে রিয়ার কথোপকথন পরিষ্কারভাবে দেখিয়ে দিচ্ছে যে তিনি সুশান্তের সঙ্গে খুশি ছিলেন না এবং সম্ভবত কেবল মহেশ ভাটের নির্দেশেই এই সম্পর্কটি শেষ করেছিলেন।