Dhaka

মসজিদে এসি বিস্ফোরণের ঘটনায় ১১ জনের মৃত্যু

নারায়ণগঞ্জে তল্লা এলাকায় বায়তুস সালাত জামে মসজিদে এসি বিস্ফোরণের ঘটনায় এ পর্যন্ত দগ্ধ ৩৭ জনের মধ্যে চিকিৎসাধীন এক শিশু ও মুয়াজ্জিনসহ ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে।

শনিবার সকালে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিটিউটের সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে বার্ন ইউনিটের সহকারী পরিচালক ডা. হুসেইন ইমাম জানান, তিনি বলেন, গুরুতর দগ্ধ আরও ২৬ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করছি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দগ্ধদের সর্বোচ্চ চিকিৎসা দেয়ার নির্দেশনা দিয়েছেন। তিনি গভীর শোকও প্রকাশ করেছেন।

আরো পড়ুনঃ বার বার অভিযোগ,ভয়াবহ বিস্ফোরণের পর লোক পাঠালো তিতাস

তিনি আরো বলেন, বিস্ফোরণের ঘটনায় আহতদের জন্য একটা ডেডিকেটেড ওয়ার্ড করা হয়েছে। স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক পরিদর্শন করেছেন। সরকারি ব্যবস্থাপনায় সবারই চিকিৎসা চলবে। তবে কেউ শঙ্কামুক্ত নন।

নারায়ণগঞ্জের ওই মসজিদে এসি বিস্ফোরণ নাকি গ্যাস লিকেজ থেকে হয়েছে তা খতিয়ে দেখছেন ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের কর্মকর্তারা। 

ফায়ার সার্ভিসের একজন কর্মকর্তা জানান, তারা ঘটনার পর মসজিদে গ্যাস ডিটেক্টর দিয়ে পরিমাপ করেছেন। মসজিদের ভেতরে প্রায় ৭০ ভাগ মিথেন গ্যাসের উপস্থিতি পাওয়া গেছে।