Bangladesh Politics

যে সরকার সরকারি কর্মকর্তাদের জীবনের নিরাপত্তা দিতে পারে না

বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স বলেছেন, সরকারের চরম ব্যর্থতায় জনগণের জান-মালের নিরাপত্তা নেই। যে সরকার সুরক্ষিত বাসভবনে তার সরকারি কর্মকর্তাদের জীবনের নিরাপত্তা দিতে পারে না, সে সরকারের আমলে সাধারণ মানুষের অবস্থা কতটা শোচনীয় তা সহজেই বোধগম্য।

সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স আজ শনিবার ময়মনসিংহে করোনা ও বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের মাঝে ময়মনসিংহ মহানগর বিএনপির উদ্যোগে ত্রাণ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছিলেন।

ময়মনসিংহ মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক অধ্যাপক শফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে ত্রাণ বিতরণ অনুষ্ঠানে মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক অধ্যাপক আমজাদ আলী, কাজী রানা, শাহ শিব্বির আহমেদ ভুলু, ফারজানা রহমান হোসনা, অ্যাডভোকেট আবদুল হান্নান খান, কায়কোবাদ মামুন, শামিম আজাদ, মাহবুবুল আলম, বিএনপি নেতা রতন আকন্দ, সৈয়দুজ্জামান জিন্নাহ, অ্যাডভোকেট মাসুদ তানভীর তান্না, মাহবুব হোসেন পাপন, সুলতান উদ্দিন আহমেদ, মহানগর যুবদলের সভাপতি মোজ্জামেল হক টুটু, সাধারণ সম্পাদক জোবায়েদ হোসেন শাকিল, ছাত্রদল সভাপতি নাইমুল করিম লুইন, সাধারণ সম্পাদক তানভিরুল ইসলাম রবিন, শ্রমিক দল সভাপতি শহিদুল ইসলাম দুলাল, সাধারণ সম্পাদক আবদুল মান্নান, স্বেচ্ছাসেবক দল সভাপতি আমিনুল ইসলাম ফয়সাল, মহিলা দল সভানেত্রী খালেদা আতিক, সাধারণ সম্পাদিকা আতিয়ার ফাইরোজ মলি, ওলামা দলের যুগ্ম আহ্বায়ক হাফেজ ফয়েজ উল্লাহ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে এমরান সালেহ প্রিন্স ময়মনসিংহ মহানগরের ৭নং ওয়ার্ডের ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের মধ্যে এবং ওয়ার্ড ভিত্তিক ত্রাণ ওয়ার্ড নেতাদের হাতে তুলে দেন।

সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স বলেন, সার্বিকভাবে সরকার দেশ পরিচালনায় ধারাবাহিকভাবে ব্যর্থ হয়েছে। গণতন্ত্র, ভোটের অধিকার হরণ করে অনৈতিক শাসন দীর্ঘায়িত করতে দুর্নীতি, লুটপাটকে প্রশ্রয় দিয়ে সুবিধাভোগী সৃষ্টি করা হয়েছ। কেন্দ্র থেকে ওয়ার্ড পর্যায় পর্যন্ত আওয়ামী লীগ, যুব-ছাত্র লীগ দুর্নীতি, লুটপাট, এমনকি চুরি, ডাকাতি, ছিনতাই, ধর্ষণ, মাদক, চাঁদাবাজিতে জর্জরিত। এমন কোনো অপকর্ম নাই, যাতে তারা জড়িত নয়। করোনা ও বন্যায় জনগণের পাশে না দাড়িয়ে ত্রাণ লুটপাট করে জনগণের দুর্ভোগ আরো বাড়িয়ে দিয়েছে। ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে লীগ গোষ্ঠি আজ নিয়ন্ত্রণহীন, বেপরোয়া।

তিনি বলেন, জনগণের ক্ষোভ থেকে নিজেদের বাঁচানোর জন্য সরকারবিরোধী রাজনীতিকে নিয়ন্ত্রণ করতে আইনের শাসনকে আওয়ামী শাসনে পরিণত করেছে। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে বিভিন্ন শর্তের বেড়াজালে আটক রেখে বিরোধী রাজনীতিকে নস্যাৎ করতে চায়। এতেও সরকারের শেষ রক্ষা হবে না। রাষ্ট্রীয়-দলীয় সন্ত্রাস ও ভোট জালিয়াতি করা সরকারের ঘর তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়তে বেশী দেরি নাই।

তিনি দলীয় নেতা-কর্মীদের প্রতি সর্বত্র সুসংগঠিত এবং জনগণের পাছে থাকার আহ্বান জানিয়ে বলেন, ইস্পাত কঠিন ঐক্য গড়ে জনগণের বিজয় ছিনিয়ে আনার বিকল্প নাই।