Dhaka

হোসেনপুরে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে দুই বাল্যবিবাহ বন্ধ

হুমায়ুন কবির, কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি: শুক্রবার (০৪ সেপ্টেম্বর) কিশোরগঞ্জ জেলার হোসেনপুর উপজেলার পুমদী ইউনিয়নের আতিরা গ্রামে এক বাল্যবিয়ের আয়োজন করা হয়। উপজেলার আড়াইবাড়িয়া ইউনিয়নের রাজন মিয়ার সাথে ওই বিয়ের আয়োজন করা হয়েছিলো বলে জানা যায়।

কনে মোছাঃ রনি আক্তার (১৪) উপজেলার মাধখলা মাদ্রাসার ৭ম শ্রেণীর ছাত্রী ছিলো। এ সময় বাল্যবিয়ের খবর পেয়ে সেখানে উপস্থিত হন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট জনাব ওয়াহিদুজ্জামান। তার হস্তক্ষেপে মুচলেকার মাধ্যমে বাল্য বিয়ে বন্ধ করা হয়েছে।

শুক্রবার (০৪ সেপ্টেম্বর) আড়াইবাড়িয়া ইউনিয়নের রাজন মিয়ার সাথে বিয়ের আয়োজন করা হয়েছিল। এসময় বাল্যবিয়ের আয়োজন করার দায়ে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে কনের বাবা মোঃ গোলাপ মিয়াকে ২০০০/- (দুই হাজার) টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

অপরদিকে, একইদিনে উপজেলার সিদলা ইউনিয়নের সুরাটি গ্রামেও এক বাল্যবিয়ের আয়োজন করা হয়। সেখানে সুরাটি মাদ্রাসার ৮ম শ্রেণীর শিক্ষার্থী দেওয়ান হাবিবা’র (১৫) ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার মোঃ আল-আমিনের ছেলে শিমুল এর সাথে এই বিয়ের আয়োজন করা হয়।

আরো পড়ুনঃ বীরশ্রেষ্ঠ নূর মোহাম্মদের ৪৯ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী আজ

উক্ত বাল্যবিয়ের খবর পেয়ে সেখানে উপস্থিত হন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) জনাব, এ.এস.এম জাহিদুর রহমান। তার হস্তক্ষেপে সেখানেও মুচলেকার মাধ্যমে বাল্যবিয়ে বন্ধ করে হয়। সেখানে সবাইকে সাবধান ও সতর্কবার্তায় জানিয়ে দেওয়া হয়, ভবিষ্যতে এমন নগন্য কাজে কেও লিপ্ত থাকলে কাওকেই ছাড় দেওয়া হবে না। সবাইকেই কঠিনতম শাস্তির আওতায় আনা হবে। একইসাথে সবাইকে বাল্যবিয়ে বিষয়ে সবাইকে অবগতি করা হয়।

এই বিষয়ে উপজেলা প্রশাসন জানান, এভাবে মেয়েদের জীবন নষ্ট করা হচ্ছে। উপজেলার যেকোন জায়গায় এমন বাল্যবিবাহের ঘটনা রোধে আমরা সর্বদা প্রস্তুত আছি। আমাদের লক্ষ্য এই উপজেলা কে বাল্যবিবাহ মুক্ত উপজেলা হিসেবে স্বীকৃতি পাওয়া। তাই সবার সহযোগীতা কামনা করছি।