করোনা ফোকাস

শ্বাসযন্ত্রে করোনা সংক্রমণের ছবি প্রকাশ

করোনা ভাইরাস সংক্রমণের ফলে শ্বাসযন্ত্রের মারাত্মক ক্ষতি হচ্ছে বিজ্ঞানীরা আগেই দাবি করেছেন। নিউ ইংল্যান্ড জার্নাল অব মেডিসিনে কীভাবে শ্বাসযন্ত্রের কোষে আক্রমণ করছে প্রাণঘাতী এই ভাইরাস, কীভাবেই বা পুরো শরীরে ছড়াচ্ছে সংক্রমণ, সেই সংক্রান্ত ছবি প্রকাশ করেছে বলে জানা গেছে।

নর্থ ক্যারোলিনা চিলড্রেন্স রিসার্স ইনস্টিটিউট ইউনিভার্সিটির গবেষকেরা প্রায় একটানা ৯৬ ঘণ্টা ধরে উচ্চক্ষমতাসম্পন্ন ইলেকট্রন মাইক্রোস্কোপে পরীক্ষা করে ধরা পড়েছে শ্বাসযন্ত্রের কোষে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের ছবি। 

ছবিতে দেখানো হয়েছে কীভাবে ফুসফুসের বাইরের দিকে এপিথেলিয়াল কোষের গায়ে মিউকাসের মতো এক ধরনের পদার্থ তৈরি করেছে ওই মারণ ভাইরাস। সেই পদার্থটি ওই জায়গাতেই দিব্যি বাড়ছে। এমনকি তা অন্যকে আক্রমণ করার জন্যও তৈরি হচ্ছে।

তবে গবেষকদের দাবি, কীভাবে ভাইরাস মানবদেহে আক্রমণ করছে। এছাড়া পরবর্তীকালে তা সকলের শরীরে ছড়িয়ে পড়ছে তা এই ছবির মাধ্যমে স্পষ্ট করে বোঝা সম্ভব হবে। নানা রঙের সাহায্যে ফুটিয়ে তোলা এমন স্পষ্ট ছবি আগে কোনদিন দেখেননি বলেই দাবি বিজ্ঞানীদের। এই ছবিকে অনুসরণ করলে রোগীর চিকিৎসা পদ্ধতি আরও উন্নত করা সম্ভব হবে বলেই দাবি তাদের।

আরও পড়ুনঃ নেপালে ভূমিধ্বসে ১২ জনের প্রাণহানি

প্রায় প্রতিদিনই একটু একটু করে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। এই পরিস্থিতিতে ভ্যাকসিনের অপেক্ষায় প্রহর গুনছে গোটা বিশ্ব। ভ্যাকসিন তৈরিতেও মরিয়া বিজ্ঞানীরা। চলছে জোর কদমে কাজ। তবে যতদিন না ভ্যাকসিন প্রত্যেকের হাতে এসে পৌঁছয়, ততদিন সাবধানতা অবলম্বন করা ছাড়া আর কোনও গতি নেই। 

এই পরিস্থিতিতে তাই বিশেষজ্ঞরা বারবারই বলছেন মেনে চলুন সামাজিক দূরত্ববিধি। এছাড়াও মাস্ক ব্যবহার করতে ভুলবেন না। আর এই দুই নিয়ম মেনে না চললেই হতে পারে বিপদ।

উল্লেখ্য, বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ২ কোটি ৮৯ লাখ ৫৬ হাজার ছাড়িয়েছে। আর এ মহামারিতে আক্রান্ত হয়ে বিশ্বে মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৯ লাখ ২৮ হাজার।