Dhaka জাতীয়

অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ ও মশার প্রজননস্থল শনাক্তে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি) এলাকায় অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ ও এডিস মশার প্রজননস্থল শনাক্তকরণে ভ্রাম্যমাণ আদালতগুলোর অভিযান চলমান।

মঙ্গলবার ২৫তম দিনে নিয়মিত উচ্ছেদ কার্যক্রমের ধারাবাহিকতায় ডিএসসিসির আওতাধীন অঞ্চল ০৭ এর গ্রিন মডেল টাউন গেট সংলগ্ন দক্ষিণ মুগদা এলাকায় উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় রাস্তা সম্প্রসারণের কাজে বাধা সৃষ্টি করে তৈরি করা একটি অবৈধ পাকা স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। ডিএসসিসির সম্পত্তি কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান এবং নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এ এইচ ইরফান উদ্দিন আহমেদ উচ্ছেদ অভিযানে নেতৃত্ব দেন।

আরও পড়ুনঃ ইসির দুই অপারেটরসহ ভুয়া এনআইডি তৈরি চক্র ডিবির জালে

উচ্ছেদ অভিযান সম্পর্কে মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান বলেন, গত বুধবার ডিএসসিসি মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস দক্ষিণ মুগদা এলাকা পরিদর্শন করে সেই এলাকার অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের নির্দেশ দিয়েছিলেন। মেয়রের নির্দেশনায় আজ সকাল থেকে উচ্ছেদ কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এ এইচ ইরফান উদ্দিন আহমেদ বলেন, ডিএসসিসির মেয়রের নির্দেশনা ছিল, এক সপ্তাহের মধ্যে যেন এই এলাকার অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। সে নির্দেশনার আলোকে আজ বেলা ১১টা থেকে আমরা দক্ষিণ মুগদায় উচ্ছেদ অভিযান শুরু করি (এখনো চলমান)। এই অভিযানের মাধ্যমে রাস্তা সম্প্রসারণ কাজে বাধা সৃষ্টিকারী একটি বড় পাকা স্থাপনা উচ্ছেদ করেছি এবং ৯ শতাংশ জমি আমরা দখলমুক্ত করতে পেরেছি।

এদিকে মশার প্রজননস্থল শনাক্তকরণে আজ ২১তম দিনে করপোরেশনের একটি ভ্রাম্যমাণ আদালত অঞ্চল-১ এর ১৫ ও ১৭ নং ওয়ার্ডে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে। করপোরেশনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কাজী মোহাম্মদ ফয়সালের নেতৃত্বাধীন ভ্রাম্যমাণ আদালত এ সময় ৩২টি স্থাপনা পরিদর্শন করে তিনটি স্থাপনায় এডিস মশার লার্ভা পাওয়ায় তিনটি মামলা দায়ের ও নগদ ১ লাখ টাকা জরিমানা করেন।