জাতীয়

ভারতের পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ, বিপাকে আমদানিকারকরা

ভারতে পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই বেনাপোল স্থলবন্দরসহ দেশের বিভিন্ন স্থলবন্দর দিয়ে বাংলাদেশে পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ ঘোষণা করল ভারত।

দেশে সংকটের মধ্যেও দুর্গা পূজা উপলক্ষে বাংলাদেশ সরকার বন্ধুত্ব ও বাণিজ্যিক সম্পর্ক জোরদার করতে ভারতকে ইলিশ আমদানির সুযোগ দিলেও ভারত সরকার সংকট দেখিয়ে বাংলাদেশে বন্ধ করেছে পেঁয়াজ রফতানি। এতে নানা মহলে বিরূপ প্রতিক্রিয়া এসেছে।

গত বছরেও পূজা উপলক্ষে যেদিন ভারত সরকারকে ৫০০ মেট্রিক টন ইলিশ দেওয়া হয় ঠিক সেদিনেও বাংলাদেশে একই কারণ দেখিয়ে বন্ধ করা হয়েছিল পেঁয়াজের রফতানি।

বেনাপোল বন্দর দিয়ে ইলিশের চালান ঢোকার পর পরই হঠাৎ করে সোমবার বিকাল থেকে বাংলাদেশে পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ করে দেয় ভারতের পেট্রাপোল কাস্টমস। এতে বেনাপোল বন্দরে প্রবেশের অপেক্ষায় পেট্রাপোল বন্দরে প্রায় শতাধিক পেঁয়াজ বোঝাই ট্রাক আটকা পড়ে। ফলে পচনশীল পণ্য নিয়ে বেকায়দায় পড়েছেন আমদানিকারকরা।

বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় পেঁয়াজ আমদানিকারক খুলনার হামিদ এন্টারপ্রাইজের প্রতিনিধি জনি ইসলাম জানান, পূজার সময় আমরা ভারতকে ইলিশ দিচ্ছি অথচ তারা হঠাৎ করে এভাবে পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ না করে সময় দিতে পারতো। এখন এমন অবস্থা আটকে পড়া পেঁয়াজে মারাত্মক লোকসানের মুখে পড়বেন তারা। 

জানা যায়, দেশে ইলিশ উৎপাদন কমে যাওয়ায় ২০১২ সালের পহেলা অক্টোবর বাণিজ্য মন্ত্রণালয় দেশের বাইরে ইলিশ রফতানি স্থগিত করে। তবে এরপর থেকে বাইরের কোন দেশে ইলিশ রফতানি না হলেও বন্ধুত্ব সম্পর্কের কারণে পূজা উপলক্ষে গত বছরের ২৯ সেপ্টেম্বর ভারতকে ৫০০ মেট্রিক টন এবং এবছর ১৪৫০ মেট্রিক টন ইলিশ আমদানির সুযোগ দেয়। ১৪ সেপ্টেম্বর বিকালে প্রথম চালানে দুই ট্রাক ইলিশ ভারতে ঢুকেছে। আগামী ১০ অক্টোবরের মধ্যে বাকি ইলিশ ঢুকবে। তবে দুই বারই দেখা গেছে যেদিন ইলিশ পাঠানো হয়েছে ঠিক সেদিনই বাংলাদেশি মানুষের নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্যদ্রব্য পেঁয়াজ রফতানি তারা বন্ধ করেছে।

আরো পড়ুন: অনেক নারীর সাথেই প্রতারণা করেছে প্রতারক লিটন

ভারতের পেট্রাপোল সিঅ্যান্ডএফ স্টাফ এ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক কার্তিক চন্দ্র জানান, সকাল ৯ টায় এক ট্রাক পেঁয়াজ বাংলাদেশে ঢোকে। এরপর কাস্টমস পেঁয়াজ রফতানিতে বাঁধা দেয়। তবে প্রাথমিকভাবে যেটা জানা গেছে, ভারতের বিভিন্ন প্রদেশে বিশেষ করে যে অঞ্চল থেকে পেঁয়াজ আসে সেখানে বন্যায় ফসলের ক্ষেত তলিয়ে গেছে। এতে সংকট দেখা দেওয়ায় আপাতত দেশের বাইরেও পেঁয়াজ যাচ্ছে না। তবে সংকট কাটলে যে কোনো সময় এ নিষেধাজ্ঞা আবার প্রত্যাহার হতে পারে। 

বেনাপোল বন্দরের উপপরিচালক (ট্রাফিক) মামুন কবীর তরফদার জানান, পেঁয়াজ আমদানি সহজ করতে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের একটি প্রতিনিধি দল ১৪ সেপ্টেম্বর দুপুরে বেনাপোল বন্দরে বৈঠক করেন। কিন্তু বিকালের পর হঠাৎ করে বিভিন্ন মাধ্যমে জানতে পারি ভারত থেকে আর পেঁয়াজ ঢুকছে না। তবে পেঁয়াজ রফতানি বন্ধের বিষয়ে ভারতীয় কর্তৃপক্ষ তাদেরকে কোন চিঠি দেয়নি।