Bangladesh

ব্যবসায়ীকে মারধর ও চাঁদাবাজির অভিযোগে ৩ ছাত্রলীগ নেতা গ্রেপ্তার

এক ব্যবসায়ীকে মারধর ও চাঁদাবাজির অভিযোগে করা মামলায় নওগাঁর মহাদেবপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রাজু আহমেদসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার রাতে ঢাকার বিমানবন্দর এলাকা থেকে মহাদেবপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রাজু আহমেদ (৩০), ছাত্রলীগ কর্মী নয়ন হোসেন (২৫) ও ইমরান মহুরীকে (২২) আটক করা হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নওগাঁর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রাকিবুল আক্তার।

আরও পড়ুনঃ খাগড়াছড়িতে ইয়াবাসহ ২ জন আটক

এর আগে, মহাদেবপুর উপজেলা সদরের বাসস্ট্যান্ড এলাকার ব্যবসায়ী সোহেল রানা বাদী হয়ে ৬ সেপ্টেম্বর রবিবার সন্ধ্যায় ছাত্রলীগ নেতা রাজু আহমেদ ও নয়নসহ অজ্ঞাতনামা পাঁচ-ছয়জনের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি ও মারধরের অভিযোগে থানায় মামলা করেন।

এজাহারে বলা হয়, ৫ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় বাদীর দোকানে ঢুকে তাকে মারধর করে তুলে নিয়ে যান উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রাজু আহমেদ, নয়ন ও তার সঙ্গীরা।

এ ঘটনায় গত ৫ সেপ্টেম্বর শনিবারে ব্যবসায়ী সোহেলের দোকানের সিসি ক্যামেরায় ধারণ করা ভিডিও ফুটেজ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে। পরে তা ভাইরাল হয়ে যায়।

ভিডিওতে দেখা যায়, দোকানে ঢুকে সোহেল রানাকে এলোপাতাড়ি চড়-থাপ্পড় মারছেন এক যুবক। সেখানে রাজুসহ ও আরো একজনকে দেখা যায়। আরও অনেকের কথা বলার আওয়াজ পাওয়া গেলেও তাদের ভিডিওতে দেখা যায়নি।

ছাত্রলীগের ওই নেতার বিরুদ্ধে থানায় মামলা হওয়ার পর সংগঠন থেকে গত ১০ সেপ্টেম্বর কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়। তিন দিনের মধ্যে লিখিত আকারে সশরীরে তাকে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নিকট হাজির হয়ে নোটিশের জবাব দিতে বলা হয়েছিল। কিন্তু নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে তিনি তার জবাব দেননি। পরে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে তার সদস্য পদ স্থগিত ও সাময়িক বহিষ্কার করা হয়। সেই সঙ্গে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের কাছে তাকে স্থায়ী বহিষ্কারের জন্য সুপারিশ করা হয়।

মহাদেবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নজরুল ইসলাম জুয়েল বলেন, গ্রেপ্তার রাজু, নয়ন ও ইমরানকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।