জাতীয়

রোহিঙ্গা সমস্যার ইস্যুতে জাতিসংঘের ভূমিকায় অত্যন্ত হতাশ বাংলাদেশ

পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন বলেছেন, রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধানের বিষয়ে জাতিসংঘের ভূমিকায় আমরা অত্যন্ত হতাশ। আমরা আরও স্বচ্ছ ও দক্ষ জাতিসংঘ চাই, যেখানে জরুরি প্রয়োজনে জাতিসংঘ আরও দায়িত্বশীল ভূমিকা রাখবে।

বৃপস্পতিবার নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সেন্টার ফর পিস স্টাডিজ (সিপিএস) ও জাতিসংঘ বাংলাদেশ যৌথভাবে ‘জনগণের প্রয়োজনের সময়ে জাতিসংঘ: বহুপক্ষীয় ব্যবস্থা নিয়ে পুনর্ভাবনা’ শীর্ষক দুই দিনের এক সেমিনারের দ্বিতীয় দিনে এমন মন্তব্য করেন পররাষ্ট্র সচিব।

সাবেক পররাষ্ট্র সচিব এবং নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনিয়র ফেলো মোহাম্মাদ শহীদুল হকের সঞ্চালনায় মাসুদ বিন মোমেন আরও বলেন, এখন পর্যন্ত আমরা বহুপক্ষীয় ব্যবস্থার প্রতি আস্থাশীল। তবে আমরা আরও স্বচ্ছ ও দক্ষ জাতিসংঘ চাই। জাতিসংঘের বর্তমান কাঠামো যে যথেষ্ট কার্যকর নয়, সেটি নিরাপত্তা পরিষদের ভোটাধিকার হোক, প্রবল শক্তিধর দেশগুলোর দ্বৈরথই হোক না কেন। তৃণমূলে জাতিসংঘ রোহিঙ্গাদের সহায়তা করলেও মূল সমস্যা সমাধানে জাতিসংঘ স্পষ্ট কোনো পথনকশা দিচ্ছে না।

অবজারভার রিসার্চ ফাউন্ডেশনের প্রেসিডেন্ট সমরি শরন বলেন, বর্তমান দুনিয়া হচ্ছে এশিয়ার দুনিয়া এবং জাতিসংঘে এশিয়ার সঠিক প্রতিনিধিত্ব থাকতে হবে। এশিয়ার দেশগুলোকে জটিলতা দূর করে একসঙ্গে কাজ করার বিষয়ে তিনি বলেন, চীন ও ভারত এবং অন্যান্য দেশ এক সময়ে সংলাপে বসবে এবং নিজেরা বিষয়টি সমাধান করবে।

বাংলাদেশে জাতিসংঘের আবাসিক সমন্বয়কারী মিয়া সেপ্পো বলেন,

640.jpg

তরুণদের নেতৃত্বে নাগরিক সমাজের কর্মকা- বাড়ছে। জলবায়ু পরিবর্তন, নারীর প্রতি সহিংসতাসহ নানা ইস্যুতে তাদের ভূমিকা চোখে পড়ার মতো।

ঢাকায় ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত রেনসে টেরিঙ্ক বলেন, মানুষের কল্যাণে ভূমিকা রাখার স্বার্থে জাতিসংঘকে কাঠামো নয়, পরিকল্পনা অনুযায়ী কাজ করতে হবে। এই প্রেক্ষাপট থেকে ইইউ সেই শূন্যতা পূরণের জন্য কাজ করছে।