ধর্ম

যে ছোট্ট দোয়ায় কোটি কোটি গুণ সাওয়াব পাবেন মুমিন!

একটি দোয়ায় কোটি কোটি গুণ সাওয়াব পাবেন মুমিন! অবাক হওয়ার কথা নয়, বরং এটি বিশ্বনবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম-এর হাদিসে নির্দেশনায় প্রমাণিত। ছোট্ট ও সহজ একটি কুরআনি দোয়া। দোয়াটি সম্পর্কে হাদিসে এসেছে-

রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘যে ব্যক্তি মুসলিম পুরুষ ও মুসলিম নারীদের জন্য ক্ষমা প্রার্থনার দোয়া করে, তাহলে প্রত্যেক মুসলিমের (নারী-পুরুষের হিসেবে) জন্য একটি করে সাওয়াব আল্লাহ তাআলা তার আমল নামায় লিখে দেন।’ (তাবারানি)

মুসলিম উম্মাহর জন্য সহজ ও ছোট্ট কুরআনি দোয়াটি হলো-
رَبَّنَا اغْفِرْ لِي وَلِوَالِدَيَّ وَلِلْمُؤْمِنِينَ يَوْمَ يَقُومُ الْحِسَابُ
উচ্চারণ : ‘রব্বানাগ-ফিরলি ওয়ালি ওয়ালিদাইয়্যা ওয়ালিল মুমিনিনা ইয়াওমা ইয়াকুমুল হিসাব।’
অর্থ : ‘হে আমাদের পালনকর্তা! আমাকে, আমার পিতা-মাতাকে এবং সব মুমিনকে আপনি সেইদিন ক্ষমা করে দিবেন; যেইদিন হিসাব কায়েম করা হবে।’ (সুরা ইবরাহিম : আয়াত ৪১)

হাদিসে পাকে প্রিয় নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের ঘোষণার আলোকে এ দোয়া সম্পর্কে ইসলামিক স্কলাররা চমৎকার ব্যাখ্যা দিয়েছেন। যা থেকে এ বিষয়টি প্রমাণিত যে, দোয়াকারী কোটি কোটি গুণ সাওয়াব পাবেন। তাহলো-

গভীর চিন্তা করলে দেখা যায়- যে ব্যক্তি মুসলিম নারী ও পুরুষের জন্য আল্লাহর কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করে, তাহলে দোয়াকারী ব্যক্তি সেসব মুমিন নারী-পুরুষের প্রত্যেকের জন্য একটি করে সাওয়াব পাবেন।

হজরত আদম আলাইহিস সালাম থেকে শুরু করে এখন পর্যন্ত কী পরিমাণ মুমিন মুসলমান নারী-পুরুষ গত হয়েছেন এবং এখন যারা জীবিত আছেন; এর সঠিক হিসাব কি কেউ বলতে পারবে? সঠিক সংখ্যা জানার কোনো সুযোগ না থাকলেও তা যে, কোটি কোটি গুণ বেশি তাতে কারও সন্দেহ নেই।

হাদিসের ঘোষণা অনুযায়ী মুমিন মুসলমান নারী-পুরুষের জন্য দোয়া করলে দোয়াকারী ব্যক্তি প্রত্যেক মুমিন মুসলমানের পরিবের্ত একটি করে সাওয়াবের অধিকারী হবেন। যা সংখ্যায় হবে অগণিত।

হাদিসের নির্দেশনা অনুযায়ী যারা এ কুরআনি দোয়াটি আরবিতে পড়তে অপরাগ; তারা এভাবে দোয়া করবেন-

‘হে আল্লাহ! আমার, আমার মা-বাবার এবং জীবিত ও মৃত সব মুমিন মুসলমান নারী ও পুরুষের গোনাহ ক্ষমা করে দিন।’

640.jpg

দোয়াটি ছোট কিন্তু সাওয়াবের পরিমাণ অগণিত। তাই এ দোয়াটি মুমিন মুসলমানের জন্য অনেক সাওয়াব লাভের মাধ্যমই নয় বরং এটি মুসলিম উম্মাহর জন্য অনেক বড় নেয়ামতও বটে।

সুতরাং মুমিন মুসলমানের উচিত, হাদিসের নির্দেশনা অনুযায়ী নিজের জন্য, বাবা-মার জন্য এবং সব জীবিত ও মৃত মুমিন মুসলমান নারী-পুরুষের জন্য সহজ ও ছোট্ট কুরআনি দোয়াটি বেশি বেশি পড়া। যা মুমিন বান্দার জন্য দুনিয়া ও পরকালের কল্যাণ লাভে কার্যকরী।

শুধু দোয়াকারী কোটি কোটি গুণ সাওয়াবের অধিকারী হবেন, বিষয়টি হবে এখানেই শেষ নয়; বরং মুমিন মুসলমানের দোয়া যদি অন্তর থেকে হয়, আর তা যদি আল্লাহ তাআলা কবুল করে নেন, তবে জীবিত-মৃত সব মুমিন মুসলমানও দুনিয়া এবং পরকালের অসংখ্য বিপদ-মুসিবত থেকে মুক্তি পাবে। এর বিনিময়েও দোয়াকারীর জন্য থাকবে অসংখ্য সাওয়াবের হাতছানি।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহর প্রত্যেককে হাদিসে নির্দেশিত কুরআনি দোয়াটি বেশি বেশি পড়ার তাওফিক দান করুন। অগণিত সাওয়াব লাভের তাওফিক দান করুন। আমিন।