জাতীয়

মৃত্যুদণ্ডে এসিড নিক্ষেপের মতো কমবে ধর্ষণ-নারী নির্যাতন: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

যৌন নিপীড়নের ঘটনায় দেশজুড়ে প্রতিবাদ আর বিক্ষোভের মধ্যে ‘জরুরি’ বিবেচনায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন সংশোধন করে মৃত্যুদণ্ডের বিধান রেখে সোমবার মন্ত্রিসভা অধ্যাদেশ আকারে জারির জন্য এর খসড়ার নীতিগত ও চূড়ান্ত অনুমোদন দেয়। মঙ্গলবার রাষ্ট্রপতি তাতে সই করেন।

মৃত্যুদণ্ডের বিধান হওয়ায় এসিড নিক্ষেপের ঘটনার মতো ধর্ষণ এবং নারী নির্যাতনও কমবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

বুধবার বিকালে সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নিজের দপ্তরে সাংবাদিকদের প্রশ্নে বলেন, “এসিড নিক্ষেপ নিয়মিত ঘটনা হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু যখন এর সর্বোচ্চ শাস্তি যখন মৃত্যুদণ্ড হলে এবং কয়েকটি রায় হওয়ার পর এটি কমে গেছে।

“এখন নারী নির্যাতনের সর্বোচ্চ শাস্তি ফাঁসি করা হয়েছে। আমরা আশা করি এটিও কমে যাবে।”

নারী নির্যাতন মামলার তদন্ত ও বিচার ১৮০ দিনেও করা যাচ্ছেনা, এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে মন্ত্রী বলেন, “বিচারের বিষয়টি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নয়। আমাদের বিচার বিভাগ স্বাধীন। বিচার সুষ্ঠু হওয়ার জন্য যা করা প্রয়োজন করছি অর্থাৎ সঠিক তদন্ত তা আমরা করছি।

রায়হানের মৃত্যুতে দায়ীদের বিচারের সম্মুখীন হতে হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

“পুলিশ তদন্তসহ সকল বিষয়ে নজর রাখছে। প্রয়োজনে পিবিআইকে তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হচ্ছে। তদন্ত নিরপেক্ষ করতে যা দরকার করছি, করব। আদালত বিচারের সিদ্ধান্ত নেবে। তারাও কিন্তু দ্রুত বিচারের বিষয়টি বলেছেন।”

640.jpg

আসাদুজ্জামান খাঁন বলেন, “৩০ বছর আগে এক ধরনের তদন্ত হয়েছিল, পিবিআই তদন্ত করে আবার নতুন করে তথ্য বের করেছে। মানুষ যাতে সঠিক বিচার পান সেজন্য সাথে সুশাসন নিশ্চিত করার কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী। পুলিশ ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সে কাজটি করছে।”