Asia আন্তর্জাতিক

ভারত প্রতিবেশী দেশগুলোর জন্য হুমকি: ইমরান খান

ভারত নিয়ে অভিযোগের শেষ নেই পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের। এবার চীন, বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা ও পাকিস্তানের জন্য প্রতিবেশী ভারতকে হুমকি আখ্যায়িত করেছেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান। একই সঙ্গে দেশটিকে একটি ‘ফ্যাসিবাদী’ রাষ্ট্র মন্তব্য করেন তিনি।

জার্মানির সাপ্তাহিক ম্যাগাজিন ‘ডের স্পিগেল’কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে খান বলেন, ভারতে এখন উপমহাদেশের সবচেয়ে চরমপন্থি ও বর্ণবাদী সরকার শাসন। দেশটির সরকারের এমন কর্মকাণ্ডে এই অঞ্চলটি যে কোন সময়ে সহিংসতা ছড়িয়ে পড়তে পারার শঙ্কা প্রকাশ করেন তিনি।

আরো পড়ুন: যুক্তরাষ্ট্রে আগাম ভোটের নতুন রেকর্ড

ইমরান উল্লেখ করেন, ১৯২০ ও ১৯৩০-এর দশকে নাৎসি বাহিনীর মূল আদর্শে অনুপ্রাণিত তারা। ভারতের বর্তমান শাসন ব্যবস্থা পুরো বিশ্বের জন্যই অনেকটা হুমকি ভারত। ভারত সব প্রতিবেশী দেশের জন্যই হুমকি বলে দাবী করেন তিনি।

সাক্ষাৎকারে মার্কিন নির্বাচন, কাশ্মীর নির্বাচনসহ নানা অমীমাংসিত ইস্যু তুলে ধরে যুক্তরাষ্ট্রের নিরপেক্ষ হস্তক্ষেপ কামনা করেন ইমরান। বলেন, নতুন মার্কিন প্রেসিডেন্ট যে-ই হোন না কেন, এটাই প্রত্যাশা।

আফগানিস্তানে পাকিস্তানের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্নের জবাবে ইমরান বলেন, ২৭ লাখ আফগান নাগরিক বর্তমানে পাকিস্তানে অবস্থান করছেন। যুদ্ধবিধ্বস্ত আফগানিস্তানে শান্তি ফিরিয়ে আনতে দীর্ঘ দিন ধরে চেষ্টা চালাচ্ছে ইসলামাবাদ। সেখানে আমাদের কোন শাসনের ইচ্ছা নেই, বরং আফগান নাগরিকদের সুন্দর ভবিষ্যতের দিকে এগিয়ে যেতে পারে সেই চেষ্টা করে যাচ্ছি।

আরো পড়ুন: যুক্তরাষ্ট্রে আগাম ভোটের নতুন রেকর্ড

পাকিস্তান কীভাবে তালিবানদেরকে আলোচনার টেবিলে আনতে সক্ষম হয়েছিল এমন প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন যে ২.৭ মিলিয়ন আফগানিস্তান পাকিস্তানে অবস্থান করছে।

আরও পড়ুন

মুসলিমদের অনুভূতিকে বুঝি আমি: ফরাসি প্রেসিডেন্ট

মহানবীর (সা.) ব্যঙ্গচিত্র প্রকাশে সমর্থন ও ইসলামবিদ্বেষী মন্তব্যের কারণে সৃষ্ট তীব্র প্রতিক্রিয়ার মুখে সুর নরম করেছেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাখোঁ। মহানবীকে (সা.) কে অবমাননা করে কার্টুন প্রকাশে মুসলমানদের অনুভূতি কেমন হতে পারে, তা বুঝেন বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি। আল জাজিরাকে দেয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে ফরাসি প্রেসিডেন্ট এ কথা বলেছেন

ম্যাখোঁ বলেন, ‘ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শন করা ফ্রান্সের কোনো সরকারি প্রকল্প ছিল না। এটি একটি বেসরকারি স্বাধীন ও স্বতন্ত্র সংবাদপত্রের কাজ। পত্রিকাগুলো সরকারের অনুগত নয়। কার্টুন এঁকে রাসূলের (সা.) অবমাননা করায় মুসলমানদের অনুভূতি কেমন হতে পারে, তা আমি বুঝতে পারি।’

মহানবীর (সা.) কার্টুন আঁকাকে সমর্থন করেন না জানিয়ে ম্যাখোঁ বলেন, তার সরকার এ কার্টুন আঁকাকে সমর্থন করবে না বলে জোর দিয়েছিল। কিন্তু কথা বিকৃতভাবে উপস্থাপিত হওয়ায় মানুষ মনে করেছে, তিনি কার্টুনগুলো সমর্থন করেন। যারা ইসলাম বিকৃত করে তাদের আচরণে মুসলমানরা সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হয় বলেও মন্তব্য করেন ফরাসি প্রেসিডেন্ট।