Bangladesh

নবীগঞ্জে পারিবারিক বিরোধের জের ধরে সৎ মাকে হত্যার চেষ্টা, কুলাঙ্গার সন্তান আটক

আলী জাবেদ মান্না, নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ

হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে সৎ মাকে দেশীয় অস্ত্র (সুলফি)দিয়ে হত্যা চেষ্টার অভিযোগে আব্দুল বাছিত (৪৫) নামে এক জনকে আটক করেছে পুলিশ। (২ নভেম্বর) সোমবার বিকালে হত্যা চেষ্টার পর পালানোর সময় এলাকাবাসী তাকে আটক করে পুলিশের কাছে সোপর্দ করেছে। আব্দুল বাছিত নবীগঞ্জ উপজেলার ইনাতগঞ্জ ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের নিজ আগানা গ্রামের মৃত মদরিছ মিয়ার ছেলে। পারিবারিক ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, বেশ কয়েক বছর ধরে আব্দুল বাছিত মিয়া ও তার সৎ ভাইয়ের মাঝে বাড়ির সীমানা নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। তারই সূত্র ধরে সোমবার বিকালে ঘাতক আব্দুল বাছিত মিয়া তার সৎ ভাই মহসিন মিয়াকে বাড়ির উঠোনে মারধর করতে থাকে এসময় মহসিনের মা ছেলেকে বাঁচাতে ছুটে এলে ঘাতক বাছিত দেশীয় অস্ত্র (সুলফি)দিয়ে আঘাত করে মাটিতে ফেলে দেয় তার সৎ মা সাহিদা বেগমেকে। ঘটনার খবর পেয়ে সাহিদা বেগমের ছোট ছেলে আফরোজ মিয়া (২৫) ও গ্রামের কয়েকজন ছুটে আসলে বাছিত মিয়া আরো বেপরোয়া হয়ে তাদেরকেও ধাওয়া করতে থাকে। একপর্যায়ে আফরোজ মিয়াও হিন্দু যুবক সামা কান্তকেও হত্যার উদ্দেশ্যে আঘাত করে সে। এসময় এলাকাবাসী এগিয়ে এলে বাছিত দৌড়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে।

পরে স্থানীয়রা তাকে আটক করে স্থানীয় মেম্বার জিল্লুর রহমানকে ঘটনাটি জানানো হলে তাৎক্ষণিকভাবে তিনি ঘটনাস্থলে পৌঁছে বিষয়টি পুলিশকে জানান এবং এলাকাবাসীর সহযোগিতায় আহতদের নবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হলে কর্মরত চিকিৎসক বৃদ্ধা সাহিদা বেগমের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। ঘটনার খবর পেয়ে, ইনাতগঞ্জ পুলিশ ফাঁড়ির অফিসার ইনচার্জ সামছউদ্দিন খাঁনের নেতৃত্বে এএসআই লোকেশ দাশ সহ একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে দেশীয় অস্ত্রসহ ঘাতক আব্দুল বাছিতকে গ্রেফতার করে।

এ ব্যাপারে ইনাতগঞ্জ পুলিশ ফাঁড়ির অফিসার ইনচার্জ সামছউদ্দিন খাঁন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত লিখিত কোন অভিযোগ পাইনি। তবে থানায় লিখিত অভিযোগের ভিক্তিতেই এর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।