Bangladesh Chattogram

রায়পুরে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত শিশুর জন্য প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা

নুরউদ্দিন জাবেদ,লক্ষ্মীপুর জেলা প্রতিনিধিঃ

রায়পুরে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত শিশুর জন্য প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা।লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নাসরিন (১১) নামের তৃতীয় শ্রেণীতে পড়ুয়া এক কন্যা শিশু মারাত্নক ভাবে আহত হয়ে এখন জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষনে রয়েছে।

শিশুটির বাবা নূরুন্নবী জানান, গত শুক্রবার (৩০ অক্টোবর) জুম্মার নামাজের সময় নাসরিন তার খালাতো বোনের সাথে বাসাবাড়ি নামক স্থানের একটি মসজিদে তবরক প্রদান করে ফেরার পথে রাস্তা পার হওয়ার সময় রায়পুরগামী দ্রুত গতির (নাম্বার প্লেট বিহীন) একটি সিএনজি স্বজোরে নাসরিনকে ধাক্কা মারে, এতে করে সে পিজঢালা রাস্তার উপর কাৎ হয়ে পড়ে তার মাথার বামপাশের চোঁয়ালে,চোখে এবং পা’সহ শরীরের বিভিন্ন অংশে মারাত্নক আঘাত পায়।

ফেনীতে বাড়ছে সূর্যমুখী ফুলের চাষ

পরে স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় তাকে প্রথমে রায়পুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হলে তার পরিবার খবর পেয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এসে শিশুটির অবস্থা বেগতিক দেখলে তাকে দ্রুত উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান।

সেখানে তার মাথার সিটিস্ক্যান করাসহ যাবতীয় ঔষধপত্ত কিনে পরিবারটি আরও অর্থ ব্যায়ে অক্ষম হয়ে পড়ার কারণে তাকে পূনরায় বাড়িতে নিয়ে আসেন বলে জানান এই প্রতিবেদক কে।

উল্লেখ্য, শিশুটির বাবা নুরুননবী (৬১) পেশায় একজন রাজমিস্ত্রী,বছর দু’য়েক পূর্বে কাজ করতে গিয়ে উঁচু স্থান থেকে পড়ে তার ডান হাতটি ভেঙ্গে গিয়ে উপার্জনক্ষম হয়ে পড়েন তিনি। তার বাড়ি রায়পুর উপজেলার ৭নং বামনী পূর্ব কাঞ্চনপুর ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডস্থ কলিম উদ্দিন ব্যাপারি বাড়ি। দুর্ঘটনায় আহত শিশু নাসরিন বাংলাবাজার অক্সপোর্ড কিন্ডার গার্ডেনের তৃতীয় শেণ্রীতে পড়ে বলে জানায় তার পরিবার।

অন্যদিকে শিশুটিকে এক্সিডেন্ট করা সিএনজি’র ড্রাইভার ঘটনাস্থল থেকে দ্রুত ফালিয়ে গেলেও স্থানীয় জনতা সিএনজিটিকে আটক করতে সক্ষম হয় ।

রায়পুর থানায় খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে সিএনজি’টি উদ্ধার পূর্বক থানায় নিয়ে আসেন। অপরদিকে দুর্ঘটনায় কবলিত শিশুটির পরিবার বিভিন্নভাবে খোঁজ নিয়ে সিএনজি মালিকের হদিস পেলেও তারা মেয়েটির কোন খোঁজ-খবর নেয়নি বলে দাবি পরিবারটির।

এই প্রতিবেদকের সহায়তায় মালিক পক্ষ কে বিষয়টি অবগত করা হলে তারা রবিবার বিকালে প্রতিবেদকের উপস্থিতিতে শিশুটির চিকিৎসা সহায়তার আশ্বাস প্রদান করলেও অজ্ঞাত কারণে পূণরায় টালবাহানা করছেন বলে অভিযোগ করেন আহত শিশুর বাবা।

রায়পুর থানা অফিসার ইনচার্জ আব্দুল জলিলের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি মেয়েটির পরবর্তি অবস্থা সম্পর্কে তাকে অবগত করার জন্য বলেন।

এদিকে শিশুটির চিকিৎসা কাজে ব্যায়ভারে অক্ষম পরিবারটি রায়পুর থানা পুলিশসহ প্রশাসনের সহযোগীতা কামনা করে সোমবার দুপুরে রায়পুর গাজী মার্কেটস্থ সাংবাদিক ইউনিয়ন কার্য্যালয়ে এসে উপস্থিত সাংবাদিকদের নিকট বিনিত অনুরোধ করেন।