Bangladesh অপরাধ

আওয়ামিলীগ ওয়ার্ডে সেক্রেটারি লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে চাকরির নাম করে

আওয়ামিলীগ ওয়ার্ডে সেক্রেটারি লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে চাকরির নাম করে

রাজবাড়ী ,স্টাফ রিপোর্টারঃআওয়ামিলীগ ওয়ার্ডে সেক্রেটারি লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে চাকরির নাম করে।চাকরির কথা বলে মানুষের কাছ থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন,রাজবাড়ীর কালুখালী উপজেলার, কালিকাপুর ইউনিয়নের, সাতটা গ্রামের কছিমদ্দিন শেখের ছেলে মোক্তার শেখ(৬০) নামে এক ব্যক্তি ।যে কিনা ৫নং সাতটা আওয়ামিলীগ ওয়ার্ডের সেক্রেটারি, এমন অভিযোগ উঠেছে।


*ভুক্তভোগীরা হলেন ১। মোছা আসমা খাতুন পিতা আইয়ুব আলী মোল্লার মেয়ের থেকে ১,৫০,০০০ (১ লক্ষ ৫০হাজার টাকা) গ্রাম,গতমপুর।
২. আক্কাস আলী মোল্লা, পিতাঃ জয়না মোল্লা গ্রামঃ গতমপুর তার থেকে ২০০০০০(দুই লক্ষ) টাকা এবং একই গ্রামের
৩.সইজউদ্দিন এর ছেলে,, উজ্জ্বল এর থেকে ৪,৫০,০০০/-(৪ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা নিয়েছে।

ভুক্তভোগীদের অভিযোগ চাকরি দিবে বলে টাকা চায়,তারা চাকরির আশায় টাকা দিয়ে থাকে কিন্তু চাকরি না দিয়ে থাকলে তাদের টাকা ফেরত চাইলে বিভিন্ন কথা বলে মাসের পর মাস টাকা দিবে বলে ঘুরাচ্ছে কিন্তু টাকা দিচ্ছেনা ৷

এই টাকার জন্য বেশ কয়েকবার গ্রাম্য শালিস হয় এবং সে টাকা দিবে বলে কিন্তু টাকা দিচ্ছেন।ভুক্তভোগীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, মুক্তার শেখ নামের এই ব্যাক্তি আমাদের সাথে প্রতারণা করতেছে।

রাজবাড়ী জেলার আব্দুর রব মুনা বিশ্বাসের দূর্নীতি ও চাঁদাবাজি

ষ্টাফ রিপোর্টারঃ ভালুকা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনার ডাঃ সোহেলী শারমিন দুর্নীতির রানী।ভালুকা স্বাস্থ্য কর্মকর্তার রোগীদের সেবা দেয়ার কথা থাকলেও ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিত্র সম্পূর্ণ উল্টো। হাসপাতালের প্রধান যদি অনিয়মকে নিয়ম বানিয়ে দূর্নীতিতে নিমজ্জিত হয়, তাহলে বাঁশের চাইতে কইঞ্চা শক্ত হবে সেটাই স্বাভাবিক। শুধু অনিয়ম, দুর্নীতি ছাড়াও অভিযোগের সীমা নেই ভালুকা উপজেলা স্বাস্থ্য পরিবার ও পরিকল্পনার  কর্মকর্তা ডাঃ সোহেলী শারমিনের বিরুদ্ধে। এদিকে সকল অভিযোগ চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখানোর পরও অদৃশ্য কারনে নিশ্চুপ কর্তৃপক্ষ।

এমতাবস্থায় মোক্তার শেখ এর সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে দৈনিক আস্থা প্রতিনিধিকে বলেন ঘটনা সত্য আমি টাকা নিয়েছি তবে এই টাকা আমি ফেরত দিবো পযার্য় ক্রমে।এছাড়াও এলাকাবাসী থেকে জানা জায় এই মোক্তার শেখ চাকুরির নাম করে টাকা নিয়েছে। কয়েকবার শালিস ও হয়েছে, এছারা আরো বলেন নাম না জানা আরো মানুষের টাকা এই ভাবেই হাতিয়ে নিছে।

ভালুকা স্বাস্থ্য কর্মকর্তার গোপন বাণিজ্য ফাঁস

ভালুকা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনার ডাঃ সোহেলী শারমিন দুর্নীতির রানী।ভালুকা স্বাস্থ্য কর্মকর্তার রোগীদের সেবা দেয়ার কথা থাকলেও ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিত্র সম্পূর্ণ উল্টো। হাসপাতালের প্রধান যদি অনিয়মকে নিয়ম বানিয়ে দূর্নীতিতে নিমজ্জিত হয়, তাহলে বাঁশের চাইতে কইঞ্চা শক্ত হবে সেটাই স্বাভাবিক। শুধু অনিয়ম, দুর্নীতি ছাড়াও অভিযোগের সীমা নেই ভালুকা উপজেলা স্বাস্থ্য পরিবার ও পরিকল্পনার  কর্মকর্তা ডাঃ সোহেলী শারমিনের বিরুদ্ধে। এদিকে সকল অভিযোগ চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখানোর পরও অদৃশ্য কারনে নিশ্চুপ কর্তৃপক্ষ।