America আন্তর্জাতিক

জর্জিয়ায় নির্বাচনের আংশিক ভোট পুনঃগণনার ঘোষণা

জর্জিয়ায় নির্বাচনের আংশিক ভোট পুনঃগণনার ঘোষণা। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের মধ্যে নির্বাচনের লড়াই এখন তুঙ্গে। চরম উত্তেজনার মধ্যে দিয়ে পার হচ্ছে প্রতিটি মুহূর্ত। এদিকে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ফল ঝুলে থাকা ছয় অঙ্গরাজ্যের অন্যতম জর্জিয়ায় আর মাত্র ৪ হাজার ১৬৯ ভোট গণনা বাকি থাকা অবস্থায় অঙ্গরাজ্যের সেক্রেটারি অব স্টেট ব্র্যাড রাফেন্সবার্গার রাজ্যে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে নতুন করে ভোট গণনার ঘোষণা দিয়েছেন। মার্কিন গণমাধ্যমের কাছে তিনি জানান, ৪ হাজার ১৬৯টি ভোট গণনা এখনও বাকি রয়েছে।

তিনি আরও জানান, পাশাপাশি সামরিক বাহিনীর সদস্যদের পাঠানো প্রায় ৮ হাজার ভোট এখন ডাকে রয়েছে। স্থানীয় সময় শুক্রবার (০৬ নভেম্বর) দিনের মধ্যে এসে পৌঁছাতে পারলে সেগুলোও গণনা করা হবে।

বিজয়ের খুব কাছে বাইডেন, জোরদার হলো নিরাপত্তা

রাফেন্সবার্গার বলেন, এই মুহূর্তে জর্জিয়ায় ফল ঘোষণা করা কঠিন। ভোটের ব্যবধান এতই কম যে নতুন করে গণনা করতে হবে। আমাদের নির্বাচন নিয়ে আগ্রহ জর্জিয়ার সীমান্তের বাইরেও আছে। পুরো দেশের ওপর জর্জিয়ার নির্বাচনের চূড়ান্ত হিসাবের একটা প্রভাব পড়বে, সেটা স্বাভাবিক।

এরপরই কোনো প্রশ্নের জবাব না দিয়ে রাফেন্সবার্গার চলে যান। তার সহকারী গেব্রিয়েল স্টার্লিং বলেন, ভোট পুনঃগণনার কারণ হচ্ছে দুই প্রার্থীর মধ্যে ব্যবধান খুবই কম। জর্জিয়ায় ভোটের ফলাফল পুনঃগণনার কারণ, দুই প্রার্থীর মধ্যে মোট প্রাপ্ত ভোটের ব্যবধান ০.৫ শতাংশ।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট হওয়ার জন্য একজন প্রার্থীকে ৫৩৮ ইলেকটোরাল ভোটের মধ্যে ২৭০টি পেতে হবে। বাইডেন ইতিমধ্যে তার প্রতিদ্বন্দ্বীর ট্রাম্পের চেয়ে ২৬৪টি পেয়ে এগিয়ে আছেন।

ব্র্যাড রাফেন্সবার্গার বলেন, আমাদের নির্বাচন নিয়ে আগ্রহ জর্জিয়ার সীমান্তের বাইরেও আছে। পুরো দেশের ওপর জর্জিয়ার নির্বাচনের চূড়ান্ত হিসেবের একটা প্রভাব পড়বে, সেটা স্বাভাবিক।

এরপরই কোন প্রশ্নের জবাব না দিয়ে রাফেন্সবার্গার চলে যান। তার সহকারী গেব্রিয়েল স্টার্লিং বলেন, ভোট পুনঃগণনার কারণ হচ্ছে দুই প্রার্থীর মধ্যে ব্যবধান খুবই কম।

নির্বাচনে কোন বড় ধরনের অনিয়ম তাদের চোখে ধরা পড়েনি বলে তিনি জানান।