Education জাতীয়

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কবে খুলবে, সিদ্ধান্ত দুই-একদিনের মধ্যেই

করোনা মহামারিতে বন্ধ থাকা সবধরনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কবে খুলবে, তা দুই-একদিনের মধ্যেই জানানো সম্ভব হবে বলে জানিয়েছেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম। সোমবার (৯ নভেম্বর) দুপুরে মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কবে খুলবে সিদ্ধান্ত আগামী দুই-একদিনের মধ্যেই জানিয়ে দেবে।

সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, কোভিড-১৯ এর প্রাদুর্ভাব শুরু হবার পর থেকেই চলতি বছরের মার্চ থেকে সম্পূর্ণ বন্ধ রয়েছে দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো। এরই মধ্যে কয়েক ধাপে এই ছুটি বাড়িয়ে আগামী ১৪ নভেম্বর পর্যন্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া আছে।

আরও পড়ুনঃ ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত ১৬৮৩ জন, ২৫ জনের মৃত্যু

১৪ নভেম্বরের পর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলছে কিনা, এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘এটা শিক্ষা মন্ত্রণালয় জানাবে। কাল-পরশুর মধ্যেই জানাবে।’

মিয়ানমারের রোহিঙ্গাদের নতুন সরকারকে অবশ্যই ফেরাতে হবে

প্রধানমন্ত্রীর কোনো নির্দেশনা এক্ষেত্রে রয়েছে কিনা জানতে চাইলে খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, ‘খুলনা ডিভিশন থেকে একটা স্ট্রং অ্যাকশন (মোবাইল কোর্ট পরিচালনা) নেওয়া হচ্ছে, আমরাও চারদিকে সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে বলেছি। প্রধানমন্ত্রীও এগ্রি করছেন, গুড এপ্রিশিয়েট করেছেন। কিছু স্ট্রিক ভিউতে যেতে হবে। এখন পর্যন্ত আমরা কম্ফোর্টেবল জোনের মধ্যে আছি।’

আরও পড়ুনঃ স্থানীয় সরকার নির্বাচনে কাল ফরম বিক্রি শুরু বিএনপির

এ সময়, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে গণমাধ্যমকর্মীদের আরও বেশি জোরালো প্রচার করার আহ্বান জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব।

এর আগে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার ভার্চুয়াল বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে এবং মন্ত্রিপরিষদের অন্য সদস্যরা সচিবালয় থেকে ভার্চুয়াল এ সভায় যোগ দেন।

আর্থিকভাবে অস্বচ্ছল শিক্ষার্থীদের স্মার্টফোন কিনতে সুদবিহীন ঋণ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন (ইউজিসি)।

বুধবার ইউজিসি’র এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ খবর জানানো হয়েছে। করোনা মহামারির কারণে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে অনলাইন শিক্ষা কার্যক্রমে অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে ইউজিসি এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, দেশের ৩৯টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪১ হাজার ৫০১ জন অস্বচ্ছল শিক্ষার্থীকে সফটলোনের আওতায় স্মার্টফোন কিনতে জনপ্রতি সর্বোচ্চ আট হাজার টাকা করে দেওয়া হবে। এই অর্থ বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০২০-২০২১ অর্থবছরের বার্ষিক বরাদ্দের বিপরীতে অগ্রিম হিসেবে সংশ্লিষ্ট খাতে সংশোধিত বাজেটে বরাদ্দ দেওয়া হবে।

ইউজিসি চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. কাজী শহীদুল্লাহ এর সভাপতিত্বে আজ এক অনলাইন সভায় শিক্ষার্থীদের স্মার্টফোন কিনতে সুদবিহীন ঋণ দেওয়ার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।