জাতীয়

নওগাঁ সহকারি কমিশনার ভূমি বিরুদ্ধে শ্যামা মন্দিরের কাঠামো ভেঙ্গে ফেলার অভিযোগ

(বিশেষ প্রতিনিধি)ঃনওগাঁ সহকারি কমিশনার ভূমি বিরুদ্ধে শ্যামা মন্দিরের কাঠামো ভেঙ্গে ফেলার অভিযোগ। নওগাঁ সহকারি কমিশনার ভূমি মো: নাহারুল ইসলামের বিরুদ্ধে শ্রী শ্রী শ্যামা (কালী) মন্দিরের অস্থায়ী কাঠামো ভেঙ্গে ফেলার অভিযোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার দুপূরে ভুমি কমিশনার মো: নাহারুল ইসলাম দাঁড়িয়ে থেকে মন্দিরের কাঠানো ভেঙ্গে ফেলেন। এ ঘটনায় স্থানীয় সনাতন ধর্মালম্বীদের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

এর আগেও একই স্থানে শ্রী শ্রী শারদীয় দূর্গা পূজার আগে পূজা বন্ধ করতে ও অস্থায়ী মন্দিরের কাঠানো তৈরীর সময় শ্রমিকদের ভ্রাম্যমানের জেল-জরিমানা দেওয়ার জন্যে এই ভূমি কমিশনার সরকারি গাড়ীতে তোলেন। এ সময় স্থানীয়দের তৎপরতায় শ্রমিকদের ছেড়ে নিয়ে উধ্বর্তন প্রশাসনের নির্দেশে পূজা অনুষ্ঠিত হয়।

জানা গেছে, নওগাঁ সদর সহকারি কমিশনার (ভূমি) অফিস চত্তরে অস্থায়ী মন্দির তৈরী করে পুরাতন কাঠহাটি যুবক সংঘ (সনাতন ধর্মালম্বী) ৫৩ বছর থেকে নিয়মিত শ্রীশ্রী শারদীয় দূর্গা ও শ্যামা (কালী) পূজা করে আসছিলেন। আগামি শনিবার সনাতন ধর্মালম্বীদের (হিন্দু) দ্বিতীয় বৃহত্তর শ্রীশ্রী শ্যামা পূজা (শ্রী শ্রী কালী)।

নওগাঁয় প্রধানমন্ত্রীর জন্মবার্ষিকী পালন করল আওয়ামী লীগ

শ্যামা পূজা উপলক্ষে পূজা কমিটির লোকজন দুই-তিন দিন আগে সদর সরকারি কমিশনার (ভূমি) মো: নাহারুল ইসলামের সাথে দেখা করে পূজার আয়োজনের কথা জানান। এরপর বৃহস্পতিবার সকালে বাঁশ-টিন দিয়ে অস্থায়ী কাঠামো তৈরী শুরু করেন। এমতাবস্থায় হঠাৎ করে সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো: নাহারুল ইসলাম কাঠামো ভেঙ্গে ফেলেন। এরপর পূজা কমিটির লোকজন জেলা প্রশাসককে জানান।

স্থানীয়রা আরো জানান, এর আগেও একই স্থানে শ্রী শ্রী শারদীয় দূর্গা পূজার আগে পূজা বন্ধ করছেন তিনি। এ সময় অস্থায়ী মন্দিরের কাঠানো তৈরীর সময় শ্রমিকদের ভ্রাম্যমানের জেল-জরিমানা দেওয়ার জন্যে এই ভূমি কমিশনার সরকারি গাড়ীতে তোলেন। এ সময় স্থানীয়দের তৎপরতায় শ্রমিকদের ছেড়ে নিয়ে উধ্বর্তন প্রশাসনের নির্দেশে পূজা অনুষ্ঠিত হয়।

শ্রীশ্রী কালী পূজা উদযাপন কমিটির সাধারণ সম্পাদক জয়বেদ বসাক জানান, সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো: নাহারুল ইসলাম তাদের কোন কথা না বলে কাঠামো ভেঙ্গে ফেলেন। এ ঘটনায় ক্ষুদ্ধ হয়ে সন্ধ্যায় কমিটির নেতৃবৃন্দ, স্থানীয় পৌর কাউন্সিলর মজনু মিয়াসহ স্থানীয় সনাতন ধর্মালম্বীর লোকজন ভূমি অফিসে গিয়ে দেখা করেন। ঘটনারপর জেলা প্রশাসক হারুন অর রশীদের কাছে বিষয়টি জানানো হয়েছে। ডিসির নির্দেশে দিয়েছেন পূজা করার জন্যে। ইত্যে মধ্যে কিছু কাঠামো তৈরী করা হয়েছে।

সভাপতি সনত কুমার পালসহ স্থানীয়রা জানান, এর আগে কখনো কোন কর্মকর্তা পূজা বন্ধে এ ধরণের কার্যকলাপ করেননি। এর আগেও তিনি শ্রীশ্রী শারদীয় দূর্গা পূজা বন্ধের চেষ্টা করেন।

স্থানীয় পৌর কাউন্সিলর মজনু মিয়া জানান, ভূমি অফিস স্থাপনের আগে থেকে অর্থাৎ ৫৩ বছর থেকে সেখানে শারদীয়, লক্ষী ও শ্যামা পূজা অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। ভুল বোঝাবুঝির কারণে এ বছর এমন হয়েছে। আগামিতে এ ধরণের কোন অনাকাঙ্খিত কোন ঘটনা ঘটবে না বলে আশা ব্যক্ত করেন।নওগাঁ সহকারি কমিশনার ভূমি বিরুদ্ধে শ্যামা মন্দিরের কাঠামো ভেঙ্গে ফেলার অভিযোগ।

নওগাঁ সদর সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো: নাহারুল ইসলামের সাথে সেল ফোনে যোগাযোগ করা হলে কোন মন্তব্য না করে অফিসে এসে দেখা করতে বলেন। নওগাঁ জেলা প্রশাসক হারুন অর রশীদের সাথে এ ঘটনায় কোন কথা বলা সম্ভব হয়নি।