Bangladesh

পাটুয়াভাঙ্গা ইমাম-উলামা পরিষদের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন

হুমায়ুন কবির, কিশোরগঞ্জ: কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া উপজেলার পাটুয়াভাঙ্গা ইউনিয়নের সকল আলেমদের নিয়ে ” পাটুয়াভাঙ্গা ইউনিয়ন ইমাম ও উলামা পরিষদ” নামক সংগঠনের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়। বৃহস্পতিবার (১২ নভেম্বর) মাইজহাটি মাদীনাতুল উলুম মাদ্রাসা ময়দানে সকাল ১০ ঘটিকায় এই পূর্ণাঙ্গ কমিটি অনুমোদন দেওয়া হয়।

পাটুয়াভাঙ্গা সর্বজন শ্রদ্ধেয় বূজুর্গ আলেম মাও. আ. কাদির সিরাজী সাহেবসহ, মাও. আবুল কালাম আজাদ, মাও. আ. হামিদ, মাও. রইসুদ্দীন এবং মাও. শফিকুল ইসলাম দুলালসহ কয়েকজন সিনিয়র আলেমদের উপদেষ্টা নির্বাচিত করে সভাপতির দায়িত্ব দেওয়া হয় মাইজহাটি মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল মাও. শাহজাহান আনোয়ারী সাহেব কে।সেক্রেটারী জেনারেল নির্বাচিত হয় মাও. মোহাস্মদ আলি।

ধানের ক্রয় মূল্যের সাথে চাউলের মূল্যের সমন্বয় না থাকার প্রতিবাদে মানববন্ধন

সংগঠনটির সহ-সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন মুফতি আবুল বাশার রেজুয়ান, মাও. ওমর ফারুক, মাও. বাছির উদ্দিন, মাও. আবু হানিফা, মাও. নাইম হাসান।
সহ- সাধারন সম্পাদক মাও. রফিকুল ইসলাম। অর্থ সম্পাদক মুফতি আ. কাদির। সাংগঠনিক সম্পাদক সুলতান আফজাল আইয়ূবী, মাও. শফিক সাদী। দপ্তর সম্পাদক মাও. মাছুম বিল্লাহ। সহ-দপ্তর সম্পাদক মাও. শফিকুল ইসলাম। প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মাও. রুহুল আমীন। সহ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মাও. মুকাব্বির হুসাইন। তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক মাও. মিসবাহ উদ্দিন। আপ্যায়ন বিষয়ক সম্পাদক মাও. এম. হুমায়ূন কালাম। মক্তব ও ছাত্র কল্যান বিষয়ক সম্পাদক মাও. ফখরুদ্দিন। সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক মাও. ইকবাল মাহমুদ। সহ-সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক মাও. আবু রায়হান।
এছাড়াও পাটুয়াভাঙ্গা ইউনিয়নের সকল মসজিদের ইমাম ও আলেমদের সংগঠনের সদস্য হিসেবে ঘোষণা করা হয়।

এই বিষয়ে তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক মাও. মিসবাহ উদ্দিন জানান, আমাদের মূল উদ্দেশ্য ইউনিয়নের সব মসজিদের ইমাম-মোয়াজ্জিনদের সকল সুবিধা-অসুবিধা আমরা প্রত্যক্ষভাবে খেয়াল রাখবো। যেকোন প্রয়োজনে সবাই সবার পাশে থাকবো।

সংগঠন বিষয়ে জানতে চাইলে তাদের পক্ষ থেকে জানায়, আমরা সবাই একত্রিত হয়ে সম্মিলিতভাবে কাজ করতে চায়। সবাই সবার যেকোন প্রয়োজনে পাশে থাকবো। তাছাড়া বিশেষ করে- গ্রাম বাংলার যে ঐতিহ্য সকালে ভোরবেলায় ছোট ছোট ছেলে-মেয়েদের নূরানী মক্তবে যাওয়া সেটির প্রতি আমরা বিশেষ নজর দিবো। তাদের প্রত্যেককেই সহীহ-শুদ্ধভাবে কোরআন পড়ার শিক্ষা দিবো। আমাদের দৃঢ় বিশ্বাস সকলের প্রচেষ্টায় আমরা সমাজে, সারাদেশে এই সেবাটি দিতে পারবো এবং ধর্ম ইসলাম প্রতিষ্ঠিত করতে সফল হবো।