গাইবান্ধার ফুলছড়িতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ 

ওমর ফারুক রনি গাইবান্ধা প্রতিনিদি:

গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলা রক্ষা বাঁধের বটম থেকে মাটি কেটে বাঁধের কাজ করে আসছে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ওয়েষ্টান ইঞ্জিনিয়ারিং। আর এই বটমের গর্তাংশ পুরন করতে নদী থেকে বালু তুলে পুরন করে আসছে। বালু উত্তোলনের কারনে নদী সংলগ্ন বসতভিটা গুলো উচ্ছেদ হতে বসেছে।

 

নদী সংলগ্ন কয়েকশত পরিবার আজ শুক্রবার (১৯ মার্চ) দুপুরে যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা আনছার আলীর নেতৃত্বে সিংরিয়ার নদী সংলগ্ন এলাকায় এক মানববন্ধন ও বিক্ষোভ কর্মসূচীর আয়োজন করে। উক্ত বিক্ষোভ কর্মসূচীতে অংশ নেওয়া কয়েকশত মানুষ বিক্ষোভ করে বলেন এখনেই এই ড্রেজার বন্ধ না হলে আমরা নিজেরা বাড়ীঘড় হারা হয়ে পড়বো।আমরাও চাই বাঁধের নির্মান কাজ হোক, তবে আমাদের বসত ভিটা উচ্ছেদ করে নয়। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান আমাদের এখান থেকে বালু উত্তোলন না করে আর একটু ভিতরে অবস্থিত মুল নদী থেকে বালু উত্তোলন করতে পারে। এসময় মানববন্ধন ও বিক্ষোভ কর্মসূচীতে অংশ নেওয়া মানুষ গুলো আরো বলেন, আমরা ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে কয়েকবার অনুরোধ করে বলেছি এখান থেকে যেন বালু উত্তোলন করা না হয়। কিন্তু ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান আমাদের কথায় কর্ণপাত না করে একের পর এক ড্রেজার দিয়ে দিনরাত ২৪ ঘন্টা বালু উত্তোলন করে যাচ্ছে। পাশাপাশি এলাকাবাসীকে অত্র এলাকাহতে চিরতরে উচ্ছেদ ও জীবন নাশের হুমকি প্রদান করে আসছে।

আমরা নদী ভাঙ্গা মুর্খ মানুষ আমাদের শক্তি নাই ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে কিছু করার। তাই আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সহ গাইবান্ধা জেলা প্রশাসনের উদ্বোতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি কামনা করছি।

 

মানববন্ধন ও বিক্ষোভ কর্মসূচীতে বক্তব্য রাখেন যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আনছার আলী, বাংলাদেশ আওয়ামী মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্মলীগ এর কেন্দ্রীয় কমিটির শিল্প ও কুঠির বিষয়ক সম্পাদক মেহেদী হাসান বাবু সহ এলাকার সাধারন জনগন। পরবর্তীতে ড্রেজার বন্ধে বিক্ষোভ করতে থাকে এলাকার সাধারন জনগন।

আরো পড়ুন :  ওমরাহ পালন করতে ঢাকা ছাড়লেন সাত ক্রিকেটার