গাইবান্ধায় হাসপাতালে রোগীর মৃত্যু কেন্দ্র করে ভাঙচুর

 

গাইবান্ধায় হাসপাতালে রোগীর মৃত্যু কেন্দ্র করে ভাঙচুর

আতিকুর রহমান আতিক, মফস্বল ডেস্ক থেকে  :

গাইবান্ধা জেলা সদর হাসপাতালে রোগীর মৃত্যুর ঘটনাকে কেন্দ্র করে মারপিট ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। ১৮ জুলাই রবিবার সন্ধ্যার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, ১৮ জুলাই রবিবার দুপুরে গাইবান্ধা সদর উপজেলার বোয়ালী ইউনিয়নের পশ্চিম বাটিকামারী গ্রামের আলতাফ হোসেনের স্ত্রী জাহেদা বেগম (৫৫) কে মুমুর্ষু অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে আসেন তার স্বজনরা। সেই সময় হাসপাতালে ল্যাব বন্ধ থাকায় তাদের বাইরে থেকে রক্ত পরীক্ষা করার পরামর্শ দেন কর্তব্যরত চিকিৎসক। এরই মধ্যে মারা যায় জাহেদা বেগম।

স্বজনরা বলেন, রক্ত পরীক্ষা ও ক্রসম্যাচিং করে এসে দেখেন রোগী মারা গেছে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কালক্ষেপনের কারনে রোগীর মৃত্যূ হয়েছে এমন অভিযোগ করলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের লোকজন তাদের ওপর পাল্টা চড়াও হয়।

কর্তব্যরত চিকিৎসক জানান, রোগীর রক্তে হিমোগ্লোবিনের মাত্রা কম থাকায় তার অবস্থা আগে থেকেই সংকটাপন্ন ছিল। তার মৃত্যুর কথা শুনে স্বজনরা বিক্ষুব্ধ হয়ে বহিরাগত লোকজন জরুরী বিভাগে হামলা চালিয়ে কর্তব্যরত নারী চিকিৎসকসহ দুই চিকিৎসক, শিক্ষানবিস নার্স এবং অন্য কর্মীদের বেধড়ক মারপিট করে ও জিনিসপত্রও ভাঙচুর করে।

এদিকে, এই ঘটনার পর জরুরি বিভাগে ৩-৪ ঘন্টা চিকিৎসা বন্ধ রাখা হয়। এরপর রাত ৮ টা থেকে আবার জরুরি বিভাগে চিকিৎসা দেয়া শুরু হয়েছে।

গাইবান্ধা সদর থানার ইন্সপেক্টর অপারেশন রজব আলী দৈনিক আস্থাকে জানান, হাসপাতালে মারধর ও ভাঙচুরের ঘটনায় হাসপাতালের কর্তৃপক্ষ বাদি হয়ে সদর থানায় একটি এজাহার দায়ের করেছেন।

 

আরো পড়ুন :  পৌর মেয়রসহ নওগাঁর তিন বিএনপি নেতা কারাগারে