প্রথমবারের মত অনলাইনে আয়োজিত হচ্ছে ‘দারাজ বইমেলা ২০২১’
দেশের এক নম্বর অনলাইন মার্কেটপ্লেস দারাজ বাংলাদেশ
( https://www.daraz.com.bd ) প্রথমবারের মত তাদের প্ল্যাটফর্মে আয়োজন করেছে ‘দারাজ
বইমেলা-২০২১’। মেলাটি চলতি বছরের পহেলা ফেব্রুয়ারি শুরু হয়েছে এবং চলবে ২০ ফেব্রুয়ারি
পর্যন্ত। অসংখ্য লেখকের বিভিন্ন ধারার বিপুল সংখ্যক বইয়ের সমারোহ নিয়ে আয়োজন করা
হয়েছে এই মেলার।
তিন হাজারেরও অধিক বইয়ের সংগ্রহ নিয়ে আয়োজিত দারাজ বইমেলায় বইপ্রেমীরা সহজেই
তাদের পছন্দসই বই এবং প্রিয় লেখকদের খুঁজে পাবে। ‘বইয়ের ঘ্রাণে, সুবোধ জাগুক প্রাণে’– এ
মূলমন্ত্রে আয়োজিত হচ্ছে অনলাইন বইমেলাটি। মন ও মননকে আলোকিত করার ক্ষেত্রে বইয়ের
অবদান অপরিসীম, তাই এই উদ্দেশ্যকে সামনে রেখে দারাজ কিছু নির্বাচিত বইয়ের উপর সর্বোচ্চ
৭০ শতাংশ ছাড় দিচ্ছে এবং বিকাশ, মাস্টারকার্ড, সিটি ব্যংক, এইচএসবিসি, মেঘনা ব্যাংক,
প্রাইম ব্যাংক, শাহজালাল ব্যাংক এবং ইউসিবি গ্রাহকদের দিচ্ছে ১০ শতাংশ ক্যাশব্যাক (শর্ত
প্রযোজ্য)।
এ ব্যাপারে দারাজের বুকস অ্যান্ড স্টেশনারিজের ক্যাটাগোরি লিড মিনহাজ উদ্দিন বলেন ‘বই
আমাদের জীবনের শ্রেষ্ঠ বন্ধু, তাই এবার সর্বোচ্চ মানের বইয়ের সমারোহ নিয়ে দারাজ নিজেকে
সাজিয়েছে। ভাষার মাস ফেব্রুয়ারিতে আমাদের সকল গ্রাহকদের জন্য বইয়ের উপর কিছু অসাধারণ
অফার দেয়ার চেয়ে আনন্দের আর কী হতে পারে? আমরা ১৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বিনামূল্যে
ডেলিভারি দিচ্ছি যাতে আমাদের গ্রাহকরা কোভিড-১৯ মহামারী চলাকালীন সময়ে সশরীরে বইমেলায়
যাওয়ার ঝুঁকি এড়াতে পারেন।’
অন্যপ্রকাশ, অন্বেষা, সূচীপত্র, জামিল’স কমিকস অ্যান্ড কালেক্টিবলস সহ বিভিন্ন জনপ্রিয়
প্রকাশনীর বাংলা ও ইংরেজি সাহিত্যের বই, আত্মবিকাশ, বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনী, ভৌতিক,
থ্রিলার, এবং শিশুতোষ বই ও কমিকস দারাজ বইমেলা ২০২১- এ পাওয়া যাচ্ছে।
# ‘দারাজ বইমেলা ২০২১’ #‘দারাজ বইমেলা ২০২১’

আরো দেখুনঃ

চিপ সংকটের জন্য প্রযুক্তি বিশ্বে হাহাকার

কম্পিউটার কিংবা স্মার্টফোন—এসব ডিভাইসের প্রাণই চিপ। আকারে ৫ বা ৭ ন্যানোমিটার হলেও এ সংকটে ‘পাগলপ্রায়’ প্রযুক্তি বিশ্ব!
চিপ সংকটের বিষয়টি বেশ ভাবাচ্ছে প্রযুক্তি বিশ্বকে। বাজারে চিপের সরবরাহ কম বলে অনেক কারখানায় উৎপাদন থেমে আছে। অনেক ডিভাইসেরই সরবরাহ কমে যাবে। ফলে স্বাভাবিক সময়ের চেয়ে বেশি দামে কিনতে হবে।
সংবাদ মাধ্যম বিজনেস ইনসাইডার এই সমস্যার নাম দিয়েছে ‘চিপএজডন’। চিপের সংকটে পড়ে নির্ধারিত সময়ের এক মাস পর আইফোন আনার ঘোষণা দেয় অ্যাপল। স্যামসাং ও কোয়ালকম চিপ তৈরি করে নিজেদের ও অন্যদের চাহিদা মেটাতে পারেনি।