ফরমুলা ভারত প্রতিযোগিতায় ‘টিম স্বপ্নযান’ এর সাফল্য

31

ফরমুলা ভারত প্রতিযোগিতায় ‘টিম স্বপ্নযান’ এর সাফল্য

চৌধুরী নুপুর নাহার তাজ, দিনাজপুর জেলা প্রতিনিধি: আহছানউল্লা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল স্বপ্নবাজ ইঞ্জিনিয়ারিং শিক্ষার্থীদের হাতেই ২০১৭ সালে যাত্রা শুরু করে ‘টিম স্বপ্নযান’। প্রথম অংশগ্রহণ করে ফরমুলা ইম্পেরিয়ালে (ISEI India) প্রতিযোগিতায়। অংশগ্রহণ করেই চমক দেখায় তারা।

দু’টি উল্লেখযোগ্য সম্মাননা অর্জন করে দলটি। এরপর খানিকটা বিরতি। ২০২০ সালে বিশ্ববিদ্যালয়টির দ্বিতীয় এবং তৃতীয় বর্ষের কয়েকজন উদ্যমী শিক্ষার্থীর মাধ্যমে ‘টিম স্বপ্নযান’ নিয়ে আবার কাজ শুরু করে। ২০২১ এর ফরমুলা ভারতকে সামনে রেখে টানা ১০ মাসের পরিশ্রমের পর অংশগ্রহণকারী ৬০টি দলের মধ্যে দেশের জন্য আবারও দু’টি সম্মানজনক পুরষ্কার অর্জন করে ২৬ জনের ‘টিম স্বপ্নযান’। আর এই আয়োজনে প্রথমবার অংশগ্রহণকারী দলগুলোর মধ্যে ‘সেরা’ হয়েছেন তারা।

বিশ্বব্যাপী সকল ইঞ্জিনিয়ারিং শিক্ষার্থীদের মধ্যে সর্বাধিক সমাদৃত ও জনপ্রিয় অটোমোবাইল ডিজাইন-ডেভেলপিং ও রেসিং প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। প্রতিযোগিতায় বিভিন্ন দেশের স্বনামধন্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে অংশগ্রহণকারী প্রতিযোগিদের প্রযুক্তিগত দক্ষতা, ডিজাইনিং দক্ষতা এবং উদ্ভাবনী চিন্তাকে ব্যবহার করে ফরমুলা ওয়ান রেসিং কারের আদলে একটি রেস-কার তৈরি করে। প্রতিযোগিতাটি ইঞ্জিনিয়ারিং শিক্ষার্থীদের কাছে ‘ফরমুলা ওয়ান’ হিসেবে পরিচিত। এই প্রতিযোগিতায় ‘Engineering Design Presentation’- ইভেন্টে বিশ্বের স্বনামধন্য অটোমোবাইল উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর অভিজ্ঞ ইঞ্জিনিয়ারদের সামনে গাড়ি ডিজাইন সংক্রান্ত গবেষণা উপস্থাপন করতে হয়।

পরবর্তীতে গাড়িটিকে রেসিং ট্র্যাকে নামিয়ে এক্সেলারেশন ও ব্রেকিং টেস্ট, অটোক্রস রেসিং এবং এন্ড্যুরেন্স রেসিংয়ের মাধ্যমে এটির কর্মক্ষমতা এবং উচ্চগতিতে স্থিতিশীলতার পরিমাণ পর্যবেক্ষণ করা হয়। এই প্রতিযোগিতার আরেকটি বড় আকর্ষণ হচ্ছে ‘Business and Cost Presentation’- ইভেন্ট, যেখানে গাড়িটিকে কাজে লাগিয়ে ব্যবসায়িক দৃষ্টিকোণ থেকে গাড়িটির সম্ভাবনা যাচাই করা হয় এবং গাড়িটির পিছনে খরচকৃত মোট অর্থের সাপেক্ষে গাড়িটির কার্যকারিতা যাচাই করা হয়। ‘দ্য সোসাইটি অফ অটোমোবাইল ইঞ্জিনিয়ারিং (SAE)’- এর তত্ত্বাবধানে ইতালি, যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, জার্মানি, জাপান, হাঙ্গেরি, অস্ট্রেলিয়া, ভারত, রাশিয়া, চীন, বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশের এমন প্রতিযোগিতা আয়োজন করা হয়, যা ভারতে ‘ফরমুলা ভারত’ নামে পরিচিত।

অর্জন সম্পর্কে জানতে চাইলে দলের সদস্য প্রদীপ্ত পাল জানান, রেসিং কারের বডিওয়ার্ক হিসেবে তারা বাংলাদেশের সোনালি আঁশ পাট থেকে তৈরি কম্পোজিট ম্যাটেরিয়ালের ব্যবহার করেছেন। টিম স্বপ্নযানের দুর্দান্ত অগ্রগতিই আমাদের দ্বিতীয় অর্জন এনে দেয় – Formula Student Debut – যা প্রথমবার অংশগ্রহণকারী টিমগুলোর মধ্যে ‘টিম স্বপ্নযানকে’ সেরা হিসাবে আখ্যায়িত করা হয়। তিনি আরও বলেন, বিশ্বজুড়ে করোনা পরিস্থিতির কারণে অন্যান্য দেশের মতো ভারতেও প্রতিযোগিতাটি ভার্চুয়ালি আয়োজিত হয়।

২০২২ সালের মধ্যে নিজেদের ডিজাইন করা গাড়িটি পুরোপুরিভাবে প্রস্তুত করে ভারত, জাপান এবং ইতালিসহ অন্যান্য দেশে প্রতিযোগিতায় নিয়ে যেতে চান তারা। অটোমোবাইল জগতে বাংলাদেশের হয়ে সম্মানজনক স্বীকৃতি অর্জন করার স্বপ্ন তাদের।