প্রত্যেকেই চান নিজের সৌন্দর্য ধরে রাখতে। যদিও এক্ষেত্রে নারীরা একটু বেশি সচেতন। তবে নিয়মিত ত্বকের সঠিক যত্ন না নিলে এই সৌন্দর্য ধরে রাখা কষ্টকর হয়ে পড়ে। যদিও অনেকেই দৈনন্দিন ব্যস্ততার মধ্যে রূপচর্চার সময় পান না।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, দিনের শেষে রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে মাত্র তিন মিনিট সময় ব্যয় করলেই পেয়ে যাবেন ঝলমলে, সতেজ ও দীপ্তিময় ত্বক। মুখ হয়ে উঠবে উজ্জ্বল ও ফর্সা। তবে এর জন্য কোনো দামি উপাদানের প্রয়োজন নেই।  ঘরে থাকা খুব সাধারণ প্রসাধনী সামগ্রী দিয়েই চটজলদি এই রূপচর্চা সেরে নেয়া যায়। আসুন জেনে নেয়া যাক সেই উপায়-

যা যা লাগবে

এক চামচ গোলাপ জল, ৩-৪ দানা জাফরান, আধা চা চামচ অ্যালোভেরা জেল, সামান্য উষ্ণ গরম পানি, ১ চা চামচ কালোজিরা, ১ চা চামচ মধু।

ব্যবহারের পদ্ধতি

গোলাপ জলের মধ্যে জাফরানের দানা ঘণ্টা খানেক ভিজিয়ে রাখুন। যত বেশি সময় ভিজিয়ে রাখবেন, সেটি তত বেশি কার্যকরী হবে। জাফরান থেকে রং ছেড়ে দিলে এর সঙ্গে অ্যালোভেরা জেল দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিন। এবার ঠাণ্ডা পানিতে ভালো ভাবে মুখ ধুয়ে নিন। এবার এক টুকরো তুলা দিয়ে পরিষ্কার মুখে এই মিশ্রণ ভালো করে মেখে নিন। মুখের ওপর লাগানো এই প্রলেপ শুকিয়ে যাওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। তারপর পরিষ্কার পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন।

ফর্সা ত্বক পাওয়ার উপায়

এবার এক গ্লাস সামান্য উষ্ণ পানির মধ্যে কয়েক দানা জাফরান ও মধু মিশিয়ে খেয়ে ঘুমাতে যান। ব্যস, সকালে ঘুম থেকে উঠে পেয়ে যাবেন উজ্জ্বল, দীপ্তিময় ত্বক।

উপকারিতা

উজ্জ্বল ও সুন্দর ত্বক পেতে, ত্বক থেকে বলিরেখা ও কালো দাগ মুছে ফেলতে জাফরান অত্যন্ত কার্যকরী একটি উপাদান। জাফরান শুধু ত্বকের বাইরে থেকেই কাজ করে না, ভেতর থেকেও ত্বকের ঔজ্জ্বল্য বাড়াতে কাজ করে। জাফরান যখন মধুর সঙ্গে মিশিয়ে খাওয়া হয়, তখন তার কার্যকারীতা বহুগুণ বেড়ে যায়।

অন্যদিকে ত্বককে কোমল, টানটান ও দাগহীন করতে চাইলে অ্যালোভেরা জেল অত্যন্ত উপকারী একটি উপাদান। ঘণ্টার পর ঘণ্টা ত্বকের সতেজ ভাব ধরে রাখতে ভিটামিন ই সমৃদ্ধ অ্যালোভেরা জেল অত্যন্ত কার্যকরী।

এছাড়া রূপচর্চায় গোলাপ জলের ব্যবহার অতুলনীয়। গোলাপ জলের নিয়মিত ব্যবহারে ত্বকের কোমলতা বজায় থাকে। সেই সঙ্গে ত্বকের ঔজ্জ্বল্য বহুগুণ বেড়ে যায়।