Home Bangladesh ডাংধরা ইউনিয়নে একটি ব্রিজের অভাবে হাজার হাজার মানুষের দুর্ভোগ 

ডাংধরা ইউনিয়নে একটি ব্রিজের অভাবে হাজার হাজার মানুষের দুর্ভোগ 

ডাংধরা ইউনিয়নে একটি ব্রিজের অভাবে হাজার হাজার মানুষের দুর্ভোগ 

বোরহানউদ্দিন, দেওয়ানগঞ্জ প্রতিনিধিঃ জামালপুর জেলার দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার ডাংধরা ইউনিয়নের কাউনিয়ারচর বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় সংলগ্ন জিঞ্জিরাম নদীর মরা খাল এর উপর ব্রীজ না থাকায় হাজার হাজার মানুষকে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। উক্ত খালের উপর ব্রিজ না থাকায় দুই কিলোমিটার ঘুরে  যাতায়াত করতে হতোহ। এমনকি কাউনিয়ারচর বালিকা বিদ্যালয় সংলগ্ন পশ্চিম পাশে গ্রামের ছাত্রছাত্রীরা বিদ্যালয় আসতে হলেও ৫ মিনিটের রাস্তা এক ঘন্টার  দুই কিলোমিটার ঘুরে আসতে হতো।

কাউনিয়াচর  বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাসুদুর  রহমান সাংবাদিকদের জানান

মরা খালের উপর ব্রিজ না থাকায় বন্যার সময় মানুষকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয় । ছাত্র-ছাত্রীর সহ স্থানীয় লোকজনকে যাতায়াত করতে সময় লাগবে ১০ মিনিট আর সেখানে বর্ষা মৌসুমে ঘুরে আসতে সময় লাগে এক ঘন্টা। পরে স্থানীয় লোকজনের প্রচেষ্টা সেখানে একটি বাঁশের সাঁকো নির্মাণ করা হয়। বাঁশের সাঁকো দিয়ে এখন প্রায় দশ পনের বছর ধরে চলছে মানুষের যাতায়াত। অনেক সময় ভেঙ্গে গেলেও আবার জোড়াতালি দিয়ে সেটা মেরামত করতে হয়। অনেক ছোট ছোট পোলাপান ব্রিজ দিয়ে যাতায়াত করলেও দুর্ঘটনার শিকার হয়। ব্রীজ নির্মাণ হলে তার স্কুলের ছাত্র-ছাত্রী  সহ অন্যান্য এলাকার লোকজন যাতায়াত করতে সহজ হবে। কাউনিয়ারচর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রায়হানুল ইসলাম  জানান ব্রীজটি নির্মাণ হলে তার স্কুলের ছাত্র ছাত্রী সহ স্থানীয়  লোকজন সহজেই যাতায়াত করতে পারবে। ব্রীজটি নির্মাণের জন্য তিনি জোর দাবি জানান।

টাঙ্গাইলে মুক্তিযোদ্ধাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা, গ্রেফতার হয়নি কেউ

জনগণের দুর্ভোগের  কথা বিবেচনা করে আরো যারা ব্রীজ নির্মাণের জন্য জোর দাবি জানিয়েছেন তাঁরা হলেন ডাংধরা ইউনিয়নের সাবেক মেম্বার বদিউজ্জামান, সাবেক মেম্বার ও সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী  মতিউর রহমান,। ডাংধরা  ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মো আব্দুর রশিদ মন্ডল জানান তার সময়ে ব্রীজটি নির্মাণের জন্য তিনি চেষ্টা করেছেন কিন্তু অর্থের অভাবে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ব্রীজ নির্মাণ করেনি  ।তিনি সামনে সুযোগ পেলে   ব্রীজটি নির্মাণের আশাবাদ ব্যক্ত করছেন।

ডাংধরা  ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাহ মোঃ মাসুদ সাংবাদিকদের জানান ব্রীজটি নির্মাণ করার জন্য তিনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলেছেন অর্থ সংকুলান হলেই বৃষ্টি নির্মাণ করা হবে বলে তিনি আশাবাদী।

কাউনিয়ারচর বাজার, ডাংধরা ইউনিয়ন পরিষদ, কাউনিয়ারচর উচ্চ বিদ্যালয়, কাউনিয়ারচর বালিকা উচ্চ  বিদ্যালয়, কয়েকটি প্রাথমিক বিদ্যালয়, একটি আলিম মাদ্রাসা,  ক,টি হাফেজিয়া ও কওমী মাদ্রাসা রয়েছে। আরও রয়েছে মুসলমানদের এক মাত্র ধর্মীয় ইবাদতের বেশ ক’টি মসজিদ। এসব প্রতিষ্ঠানের লোকজন এই বাঁশের সাঁকো দিয়েই সব সময় যাতায়াত করে থাকে। উপজেলা প্রশাসনের কাছে   জনসাধারণের প্রাণের দাবী  এই ব্রীজ টি করে দিলে এসব প্রতিষ্ঠান সহ বদলে যাবে এলাকার দৃশ্যপট।

ডাঃ আসাদুজ্জামান (বুলবুল) জানান – এই বাঁশের সাঁকোর আশেপাশের ১০টি গ্রামের মানুষ, সকল প্রতিষ্ঠানের হাজার হাজার ছাত্র-ছাত্রী ও বাজারে ক্রেতা বিক্রেতা পথচারী সহ মুসল্লীগণ যাতায়াত করে, প্রায়ই তাদের দূর্ঘটনার কবলে পড়তে হয়। তাই এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে জনবান্ধব সরকারের কাছে দাবী জানাই অতিশীঘ্রই ব্রীজ স্থাপন করে জন দুর্ভোগের কড়াল গ্রাস হতে মুক্তি দিবে।