DoinikAstha Epaper Version
ঢাকারবিবার ২৩শে জুন ২০২৪
ঢাকারবিবার ২৩শে জুন ২০২৪

আজকের সর্বশেষ সবখবর

দিনাজপুর-৪ আসনে কোন্দলে নাকাল আ.লীগ-বিএনপি

Abdullah
আগস্ট ২৮, ২০২৩ ১২:০৮ অপরাহ্ণ
Link Copied!

দিনাজপুর-৪ আসনে কোন্দলে নাকাল আ.লীগ-বিএনপি

 

নিজামুল ইসলাম/দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ

চিকন চাল আর লিচুতে সমৃদ্ধ উত্তরের জেলা দিনাজপুর। এর মধ্যে শিক্ষানগরী খ্যাত চিরিরবন্দর উপজেলার ১২টি ইউনিয়ন ও খানসামা উপজেলার ছয় ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত দিনাজপুর-৪ আসন।

 

আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে এই আসনটিতে ইতোমধ্যেই মাঠ গরম করে বেড়াচ্ছেন মনোনয়ন প্রত্যাশীরা। তবে এই আসনটিতে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগে প্রকাশ্য বিভক্তি এবং বিএনপিতে রয়েছে ব্যাপক কোন্দল।

 

কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ ঘোষিত বিভিন্ন কর্মসূচি এমনকি জাতীয় শোক দিবসের কর্মসূচিও আলাদা আলাদা পালিত হয়েছে এই আসনে। তবে জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি ও এর ব্যতিক্রম নয়। বিভিন্ন আন্দোলন, সভা, সমাবেশ পালন করা হয় আলাদা আলাদা ভেন্যুতে এছাড়াও নিজ দলের নেতাকর্মীদের মধ্যেই ঘটেছে হামলা-মামলার ঘটনাও।

 

জানা গেছে, চিরিরবন্দর ও খানসামা উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা মূলত দুটি অংশেবিভক্ত। এক অংশের নেতাকর্মীরা বর্তমান সাংসদ আবুল হাসান মাহমুদ আলীর অনুসারী আর অপর অংশ মিজানুর রহমান মানু ও ডা. আমজাদ হোসেনের অনুসারী।

 

অন্যদিকে এই দুই উপজেলায় বিএনপির একটা অংশ আখতারুজ্জামান মিয়া ও অপর একটি অংশশিল্পপতি হাফিজুররহমানের অনুসারী। নির্বাচন সামনেরেখে মনোনয়ন প্রত্যাশীরা গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা, রাস্তার মোড়ে, হাট-বাজারে দলীয় প্রধান কিংবা নেতানেত্রীদের ছবি সম্বলিত বিলবোর্ড ও পোস্টার লাগিয়েছেন। বিভিন্ন দিবসে বিলবোর্ড কিংবা শুভেচ্ছা পোস্টারও চোখে পড়ছেবিভিন্ন স্থানে।

 

এছাড়াও রাজনৈতিক সমাবেশ ও সামাজিক-সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানেও তাদের রয়েছে সরব উপস্থিতি। দলীয় সংকেত পেতে অনেকেই দলের সিনি নয়র নেতাদের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করছেন।

 

নির্বাচন কার্যালয়ের সূত্র মতে জানা যায়, দিনাজপুর-৪ আসনে ভোটার ৩ লাখ ৪২ হাজার ৮৮৭ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১ লাখ ৭২ হাজার ৬১৫ জন, নারী ভোটার ১ লাখ ৭০ হাজার ১৭২ জন। এই আসনে মোট ভোট কেন্দ্র রয়েছে ১২৩টি।

 

আ.লীগে মনোনয়ন প্রত্যাশীর যানটে থাকলেও বিএনপিতে আলোচনায় দুইজন। জামায়াত এই আসন থেকে মনোনয়ন চাইতে পারে বলে শোনা যাচ্ছে। রয়েছে জাতীয় পার্টির প্রার্থীও।

 

সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও বর্তমান সংসদ সদস্য আবুল হাসান মাহমুদ আলী এমপি এই আসনে পুনরায় মনোনয়ন চাইবেন। তিনি এই আসনে আ,লীগ থেকে টানা তিনবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। নিয়মিত এলাকায় না আসলেও তাঁর পক্ষে নেতাকর্মীরা বিভিন্ন দলীয় কর্মসূচি ছাড়াও জনগণেট সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করে চলছেন। তবে দলে প্রকাশ্য বিভক্তিতে তার দায় ও তৃণমূলের নেতাকর্মীদের চিনেন না বলেও অভিযোগ রয়েছে এই সাংসদের বিরুদ্ধে।

 

এছাড়াও মনোনয়ন দৌড়ে রয়েছেন এই আসনের সাবেক এমপি কেন্দ্রীয় কৃষক লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আলহাজ মোঃ মিজানুর রহমান মানু। বর্তমানে তিনি জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য। মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে কাজ করছেন জেলা আ.লীগ সদস্য, ল্যাবএইড হাসপাতালের অর্থোপেডিক বিভাগের চিফ কনসালট্যান্ট, চিরিরবন্দর আমেনা-বাকী রেসিডেন্সিয়াল মডেল স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা, স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা ডা. এম আমজাদ হোসেন। একই সঙ্গে মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে প্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক বিরোধীদলের সময় জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি শেখ রফিকুল ইসলাম। জেলা আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট সাইফুল ইসলাম, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক ও বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের আইনজীবী সামসুর রহমান পারভেজ, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও চিরিরবন্দর উপজেলা চেয়ারম্যান তারিকুল ইসলাম তারিক, চিরিরবন্দর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি জ্যোতিষ চন্দ্র রায় এই আসনে নৌকার মনোনয়ন চান।

আরো পড়ুন :  দিনাজপুরে গলা কেটে অটো ছিনতাইকারী চক্রের এক সদস্যসহ আটক-৩

 

জাতীয় সংসদের এই আসনটি থেকে বিএনপি’র মনোনয়ন দৌড়ে রয়েছেন বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সাবেক এমপি আখতারুজ্জামান মিয়া ও জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি শিল্পপতি হাফিজুর রহমান।

 

জামায়াত থেকে প্রার্থী হতে পারেন চিরিরবন্দরের সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও জেলা জামায়াতের সাবেক আমির আফতাব উদ্দিন মোল্লা।

 

আসনটি জাতীয় পার্টির অবস্থান ততটা শক্তিশালী না হলেও জাতীয় পার্টি থেকে মনোনয়ন চান উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি মোনাজাত উদ্দিন চৌধুরী।

 

তৃণমূল আওয়ামী লীগ ঐক্য আছে কি না এ বিষয়ে জানতে চাইলে খানসামা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান সফিউল আযম চৌধুরী লায়ন দৈনিক আস্থাকে বলেন, তৃণমূল আওয়ামীলীগ ঐক্যবদ্ধ আছে বলেই ৩৫ বছর পর খানসামায় নৌকা মার্কার উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছে। আগামী জাতীয় নির্বাচনে নেত্রী যাকেই মনোনয়ন দেবেন তার পক্ষেই কাজ করবে তৃণমূল আওয়ামী লীগ।

 

বর্তমান সাংসদ ও অর্থ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি আবুল হাসান মাহমুদ আলী এমপি দৈনিক আস্থাকে বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমার নির্বাচনী এলাকায় অসংখ্য উন্নয়ন করেছি। সাধারণ জনগনের জন্য কাজ করেছি। উন্নয়নের ধারা অব্যহত রাখতে আগামী নির্বাচনে আবারও নৌকা মার্কা চাইবো। এই আসনের মনোনয়ন প্রত্যাশী

 

জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য, স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা. এম আমজাদ হোসেন বলেন, একাত্তরে বঙ্গবন্ধুর ডাকে মুক্তিযুদ্ধ করেছি এখন তার কন্যার নেতৃত্বে জনগণের কল্যাণে কাজ করছি। আমার এলাকায় আমি বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করেছি। নেত্রী যাকেই মনোনয়ন দেবেন তার সাথেই কাজ করবো। জন শেখ হাসিনা আমাকে মনোনয়ন দিলে বিপুল ভোটে জয়ী হয়ে নেত্রীকে নৌকা উপহার দিতে পারবো।

বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।
সেহরির শেষ সময় - ভোর ৩:৪১
ইফতার শুরু - সন্ধ্যা ৬:৫২
  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৩:৪৬
  • ১২:০৩
  • ৪:৪০
  • ৬:৫২
  • ৮:১৮
  • ৫:১১