মুশফিকের সিদ্ধান্তে ‘খুশি’ আশরাফুল

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে তৃতীয় ম্যাচে রোববার (৫ সেপ্টেম্বর) উইকেটকিপিং করার কথা ছিল মুশফিকুর রহিমের। কিন্তু আগের দুই ম্যাচে কিপিং করা নুরুল হাসান সোহানকেই এদিন আবারও দেখা গেল গ্লাভস হাতে। আর তাই গুঞ্জন চলছিল, তবে কি চিরচেনা জায়গায় ফিরছেন না মুশফিক?

টাইগারদের প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো ম্যাচ শেষে দুঃসংবাদই দিলেন। জানালেন, ‘টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে জাতীয় দলের হয়ে আর কখনো কিপিং না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মুশফিক।’

এদিক, মুশফিকের এ সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন সাবেক তারকা ক্রিকেটার মোহাম্মদ আশরাফুল। নিজের ইউটিউব চ্যানেলে দেওয়া এক ভিডিও বার্তায় আশরাফুল বলেন, মুশফিকের এই সিদ্ধান্ত তার নিজের জন্য এবং দলের জন্য ভালো হবে। আশরাফুল নিজের যুক্তি দিয়েও বিশ্লেষণ করেছেন মুশফিকের সিদ্ধান্তকে। তার মতে, এখন ব্যাটসম্যান মুশফিকের কাছ থেকে আরো বেশি বেশি ভালো ইনিংস পাওয়া যাবে এবং খানিক চাপ কমবে দেশসেরা এ ব্যাটসম্যানের।
ভিডিওবার্তায় আশরাফুল বলেন, অভিষেকের সময় শুধু ব্যাটসম্যান হিসেবেই অভিষেক হয়েছিল মুশফিকের। তবে ধীরে ধীরে সেরা উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যানে পরিণত হন তিনি। জাতীয় দলের হয়ে প্রায় ১৬ বছর উইকেটকিপিং করছেন তিনি। এখন থেকে আর টি-টোয়েন্টিতে কিপিং করবেন না বলে জানিয়ে দিয়েছেন। টেস্ট ক্রিকেটেও গত দু-তিন বছর তিনি কিপিং করছেন না। আমরা যেমন দেখেছি কুমার সাঙ্গাকারাকে কিপিং ছেড়ে ব্যাটিংয়ে মনোযোগ দিতে। মুশফিক নিজের তিনটা ডাবল সেঞ্চুরির মধ্যে শেষেরটা করেছেন কিপিং ছাড়াই।’

তিনি বলেন, ‘উইকেটের পেছনে দাঁড়ানো অবশ্যই মুশফিকের একটা প্রিয় জিনিস ছিল। টি-টোয়েন্টিতে সেটা আর করবেন না তিনি। টেস্ট ক্রিকেটেও আগে থেকেই করছেন না। তাই আমি এখন তার কাছ থেকে ব্যাটিংয়ে আরো বেশি বেশি রানের আশা করব। এখনো তিনি অনেক রান করেন। এর থেকে আরো বেশি আশা করব। এখন তিনি ব্যাটিং নিয়ে বেশি সময় দিতে পারবেন। ফিল্ডিংটাও উপভোগ করবেন। কিপিংয়ে একটা আলাদা চাপ থাকতো এবং আলাদা একটা পরিশ্রমও বটে। সেই জায়গা থেকে আমি মনে করি, এখন শুধু মনোযোগটা থাকবে ব্যাটিংয়ে।’
এদিকে, দলের বর্তমান উইকেটরক্ষক নুরুল হাসান সোহান সম্পর্কে আশরাফুল বলেন, ‘শুরু থেকে দলের সেরা উইকেটরক্ষক ছিল সোহান। কিন্তু ব্যাটিংয়ের জন্য দলের নিয়মিত সদস্য হতে পারছিল না। এখন ঘরোয়া ক্রিকেটে অসাধারণ পারফরম্যান্স করায় তাকে নিয়মিত সদস্য করার চিন্তাভাবনা করছে টিম ম্যানেজম্যান্ট। সেই জায়গায়ই মুশফিক নিজে থেকে সরে গেছেন কিপিংটা ছেড়ে, শুধু ব্যাটিংয়ে মনোযোগ দেবেন।’

মুশফিক সম্পর্কে টাইগার কোচ রাসেল ডমিঙ্গো বলেন, ‘আমার মনে হয় না মুশফিকের আর এই ফরম্যাটে কিপিং করার তেমন ইচ্ছা আছে। আমরা তাই সোহানের দিকে মনোযোগ রাখছি এবং তাকেই কিপিংয়ের দায়িত্ব দিতে যাচ্ছি।’
আরো পড়ুন :  জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে উগ্র সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠী মন্দিরে হামলা করেছে