কিশোরগঞ্জে হেফাজত কর্মীদের মারধরের ঘটনায় জেলা আ.লীগ কার্যালয় ভাংচুর

212
রায়হান জামান, স্টাফ রিপোর্টারঃ
সারাদেশব্যাপী হেফাজতে ইসলামের ডাকা সকাল-সন্ধ্যা হরতাল পালন কালে কিশোরগঞ্জ ঐতিহাসিক শহীদী মসজিদ চত্বরে অবস্থানরত হেফাজতে ইসলামের নেতাকর্মীদের স্থানীয় আওয়ামীলীগ,যুবলীগ ও ছাত্রীলীগের নেতাকর্মীরা মারধর করায় হেফাজতে ইসলামের নেতাকর্মীরা ক্ষিপ্ত হয়ে কিশোরগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের কার্যালয়ে হামলা ও ভাঙচুর করে।
এ সময় তারা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবিতেও অগ্নিসংযোগ করেন। রোববার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় পুলিশ ও আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের সঙ্গে হেফাজত নেতাকর্মীদের সংঘর্ষ বাধে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ বিপুল পরিমাণ রাবার বুলেট ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে।
এ সময় কিশোরগঞ্জ শহরের গৌরাঙ্গ বাজার এলাকা থেকে পুরান থানা ইসলামিয়া সুপার মার্কেট ও বড়বাজার পর্যন্ত রণক্ষেত্রে পরিণত হয়েছে। কিশোরগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি মো. আবু বকর সিদ্দিক দাবি করেন, হামলার ঘটনায় তিনিসহ ১২ পুলিশ কর্মকর্তা-কনস্টেবল আহত হয়েছেন।
এ ছাড়া কিশোরগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আমিনুল ইসলাম বকুল, বন ও পরিবেশবিষয়ক সম্পাদক এনায়েত করিম অমি, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন মোল্লা সুমন, সাধারণ সম্পাদক ফয়েজ নোমান খানসহ অন্তত ৩৮ নেতাকর্মী ও পথচারী আহত হয়েছেন।
পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ঘটনাস্থলে পুলিশের পাশাপাশি বিজিবি ও র্যাব মোতায়েন করা হয়েছে।