ফ্রান্স ও কানাডা প্রবাসী ফুটবলার নিয়ে বাংলাদেশ দল

১৮ বছর বয়সী তাহমিদ ফ্রান্স প্রবাসী। ফ্রান্সের ইউএসএসএ ভেরতু ক্লাবের হয়ে খেলেন। কানাডা প্রবাসী ২৫ বছর বয়সী রাহবার খেলেন দেশটির নর্থ টরেন্টো সকার ক্লাবের হয়ে।

এই দুই জনের বাইরে ২৩ জনের দলে নতুন মুখ উত্তর বারিধারা‌‌র গোলরক্ষক মিতুল মারমা ও মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের ডিফেন্ডার মোহাম্মদ আতিকুজ্জামান।

সবশেষ কাতার বিশ্বকাপ বাছাইয়ের দলে স্ট্যান্ডবাই তালিকায় ছিলেন মিতুল। এবারই প্রথম মূল দলে সুযোগ পেলেন এই গোলরক্ষক।

মঙ্গলবার জেমির দেওয়া দলে ফিরেছে সাদউদ্দিন, রেজাউল করিম, বিশ্বনাথ ঘোষ। চোটের কারণে সাদউদ্দিন ও বিশ্বনাথ কাতারে যেতে পারেননি। পাসপোর্ট সমস্যার কারণে যেতে পারেননি শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের ডিফেন্ডার রেজাউল।

হাঁটুর চোটে অনেক আগে থেকেই দলের বাইরে ফরোয়ার্ড নাবীব নেওয়াজ জীবন। আবাহনী লিমিটেডের এই ফরোয়ার্ডের চোট সেরে ওঠেননি এখনও, তাই সুযোগও মেলেনি।

নাইজেরিয়ান থেকে বাংলাদেশি হয়ে যাওয়া এলিটা কিংসলে দলে ঠাঁই পাননি এএফসি-ফিফার অনুমতিপত্র না থাকায়। একই কারণে বসুন্ধরা কিংসের সঙ্গে মালদ্বীপে গেলেও এএফসি কাপ খেলতে পারছেন না এই ফরোয়ার্ড।

আগামী ২ থেকে ৯ সেপ্টেম্বর কিরগিজস্তানে হতে যাওয়া তিন জাতি টুর্নামেন্টে দল চারটি। কিরগিজস্তান জাতীয় দলের সঙ্গে আছে তাদের অনূর্ধ্ব-২৩ দল। প্রতিযোগিতায় অপর দল ফিলিস্তিন।

৫ সেপ্টেম্বর এই দলটির বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে টুর্নামেন্ট শুরু করবে বাংলাদেশ। ৭ সেপ্টেম্বর কিরগিজস্তান ও দুই দিন পর কিরগিজস্তানের অনূর্ধ্ব-২৩ দলের মুখোমুখি হবে জেমির দল।

২৩ জনের দল: আনিসুর রহমান জিকো, বিশ্বনাথ ঘোষ, তপু বর্মন, কাজী তারিক রায়হান, মাশুক মিয়া জনি, বিপলু আহমেদ, মাহবুবুর রহমান সুফিল, মোহাম্মদ ইব্রাহিম, মতিন মিয়া, রহমত মিয়া, রিয়াদুল হাসান রাফি, ইয়াসিন আরাফাত, জামাল ভূইয়া, শহিদুল আলম সোহেল, সোহেল রানা, সাদউদ্দিন, রেজাউল করিম, রাকিব হোসেন, মেহেদী হাসান, মোহাম্মদ আতিকুজ্জামান, মিতুল মারমা, নাইব মোহাম্মদ তাহমিদ ইসলাম ও রাহবার ওয়াহেদ খান।

আরো পড়ুন :  দোহারে ঈদে মিলাদুন্নবী ও মসজিদ উদ্বোধন