রাজবাড়ীর কোর্ট চত্তরে মার্কেট নির্মান নিয়ে সংঘর্ষ ৪ আইনজীবি সহ ৩ জজ কোর্ট স্টাফ আহত

70
নির্মানকাজ বন্ধের দাবীতে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন
স্টাফ রিপোর্টার ঃ
রাজবাড়ীর কোর্ট চত্ত¡র এলাকায় মার্কেট নির্মানকে কেন্দ্র করে বার এ্যাসেসিয়েশনের আইনজীবি ও জজ কোর্টের স্টাফদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা হয়েছে ।
এ ঘটনায় ৪ জন আইনজীবি ও ৩ জন জজ কোর্টের স্টাফসহ ৭ জন আহত হয়েছে। আহতরা হলেন, এ্যাডভোকেট একেএম মস্তফা মিঠু, এ্যাডভোকেট মেহেদী হাসান, এ্যাডভোকেট সম্রাট, এ্যাডভোকেট পিন্টু, জেলা ও দায়রা জজ কোর্টের নাজির সাজ্জাদ হোসেন, হিসাব রক্ষক আলী আক্কাছ, অফিস সহায়ক আবু হাসান।
সোমবার দুপুরে জেলা ও দায়রা জজ কার্যালয়ের সামনে নির্মানাধীন ওই মার্কেটের নিকটে এ ঘটনা ঘটে।রাজবাড়ী জেলা বার এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি এ্যাডভোকেট স্বপন সোম বলেন, রাজবাড়ীর কোর্ট এলাকায় বার এ্যাসোসিয়েশনে জায়গা দখল করে মার্কেট নির্মান করছে জেলা জজ কোর্ট।
ওই জায়গার ১৫ শতাংশ জমির মালিকানা বার এ্যাসোসিয়েশন। যে বিষয়টি বারংবার জেলা ও দায়রা জজ নিলুফার সুলতাণাকে মৌখিক ও লিখিতভাবে জানানো হয়েছে। এমনকি এ সংক্রান্তে একটি মামলা দায়ের করা হলেও জজ সাহেব কোন কর্নপাত না করে মার্কেট নির্মান অব্যাহত রেখেছে। তাই মার্কেট নির্মান বন্ধের দাবীতে আমরা শান্তিপূর্ন কর্মসুচী বিক্ষোভ ও মানববন্ধন করতে গেলে জজ সাহেবের কর্মচারি আমাদের উপর হামলা করে।
ও পিটিয়ে চারজন আইনজীবিকে গুরুতর আহত করে। রাজবাড়ী জেলা বার এ্যাসোসিয়েশনের যুগ্ন সাধারন সম্পাদক এ্যাডভোকেট খান মোঃ জহুরুল হক বলেন, বার এ্যাসোসিয়েশনের জায়গায় মার্কেট নির্মান করা হচ্ছে এ ব্যপারে একটি সুন্দর মিমাংসা চেয়ে তাও পাচ্ছি না।
তাহলে সাধারন মানুষের বিচারের দাবীর কি অবস্থা আপনারা বুঝেন। এখানে যে মার্কেট নির্মান করা হচ্ছে তিন লক্ষ টাকা জামানত নেওয়া হচ্ছে তার দুই লক্ষ ফেরতযোগ্য আর দোকান প্রতি এক লক্ষ টাকার কোন হদিস নেই। কার পকেট ভারী করার জন্য এই টাকা হিসেবে ঠাড়া নেওয়া হচ্ছে তা আমাদের জানা নেই। বিষয়টি নিয়ে গরীব দোকানদাররা আমাদের পিছে পিছে ঘুরছে। আমরা এ্যাডভোকেট মানুষ আমরা আন্দোলন করতে গিয়ে হামলার শিকার হই। এই বিষয়টি আমাদের জন্য লজ্জার।
তাই আমরা লাগাতার কোর্ট বর্জনের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এটির বিচার না পেলে আমরা আরো কঠোর কর্মসুচী গ্রহন করবো। রাজবাড়ী জেলা জজ কোর্টের নাজির সাজ্জাদ হোসেন বলেন, আইনজীবিরা বিক্ষোভ মিছিল করেছে এতে আমাদের কোন আপত্তি ছিলো না। তারা একত্র হয়ে এসে মার্কেট নির্মান বন্ধ করতে বলে ও শ্রমিকদের সাথে তর্কে জরিয়ে পরে। এ সময় আমি ও হিসাব রক্ষক আলী আক্কাছ এগিয়ে আসলে এক পর্যায়ে ধাক্কাধাক্কি ও পরে মারাপারি শুরু হয়। এ ঘটনায় কোর্টের ৩ জন স্টাফ আহত হয়েছে। যাদের মধ্যে আমি নীজে ইটের আঘাতে আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি আছি।
রাজবাড়ী জজ কোর্টের পাবলিক প্রসিকিউটর ( পিপি ) এ্যাডভোকেট উজির আলী শেখ বলেন, কোর্ট মারামারির জায়গা নয়। এটি পবিত্র স্থান। এখানে মানুষ ন্যায় বিচার পাওয়ার আশায় আশে। যে ঘটনাটি ঘটেছে অত্যন্ত নিন্দনীয় ও জঘন্য কাজ।
এটার বিচার হওয়া প্রয়োজন। রাজবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ( ওসি ) স্বপন কুমার বিশ্বাস বলেন, রাজবাড়ীর কোর্ট এলাকায় আইনজীবি ও জজ কোর্ট স্টাফদের মারপিটের খবর পেয়ে সাথে সাথে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে নিয়েছে।
দুইপক্ষকে দুই দিকে সরিয়ে দিয়েছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রর করা হয়েছে। এখন পরিস্থিতি শান্ত আছে।