বাংলাদেশ গেমস: দ্রুততম মানব ইসমাইল, মানবী শিরিন

31
স্পোর্টস ডেস্ক :

বাংলাদেশ গেমসের নবম আসরে দেশের দ্রুততম মানব ও মানবীর খেতাব জিতে নিয়েছেন বাংলাদেশ নৌবাহিনীর দুই অ্যাথলেট মো. ইসমাইল ও শিরিন আক্তার।

এবার সেরা হওয়ার মধ্য দিয়ে টানা ১২ বারের মতো দেশের দ্রুততম মানবী হওয়ার রেকর্ড গড়লেন শিরিন।শনিবার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে অ্যাথলেটিকস ডিসিপ্লিনের সবচেয়ে আকর্ষণীয় দুই ইভেন্টের স্বর্ণের নিষ্পত্তি হয়।

ছেলেদের ১০০ মিটার স্প্রিন্টে ১০.৫০ সেকেন্ড সময় নিয়ে সেরা হন ইসমাইল। অন্যদিকে মেয়েদের বিভাগে ১১.৬০ সেকেন্ড সময় নিয়ে সেরা হন শিরিন।

ছেলেদের স্প্রিন্টে ১০.৬০ সেকেন্ডে রৌপ্য জেতেন একই সংস্থার আবদুল রউফ এবং ১০.৭০ সেকেন্ড সময় নিয়ে ব্রোঞ্জপদক জেতেন বিমানবাহিনীর নাইম ইসলাম।

সবশেষ জাতীয় অ্যাথলেটিকসেও স্বর্ণ জিতেছিলেন ইসমাইল। বাংলাদেশ গেমসে স্বর্ণ জয়ের পর যিনি বলেন, ‘বাংলাদেশে গেমসে এটা আমার প্রথম স্বর্ণ। সব মিলিয়ে স্প্রিন্টে চতুর্থ স্বর্ণ।’

২০১৩ বাংলাদেশ গেমসে লং জাম্পে রৌপ্য জিতেছিলেন ইসমাইল। তিনি আরো বলেন, ‘করোনা মহামারির মধ্যেও এই পারফরম্যান্সে আমি খুশি। অনুশীলন কম হলেও দ্রুততম মানব হতে পেরেছি এটাতে আমি তৃপ্তি।’

তবে টাইমিং খুব একটা ভালো হয়নি ইসমাইলের। জাতীয় চ্যাম্পিয়নশিপে তার টাইমিং ছিল ১০.২০ সেকেন্ড। টাইমিং নিয়ে ইসমাইল বলেন, ‘টাইমিং ভালো না করার কারণ ঠিকমতো অনুশীলন করতে পারিনি। এখন যেটা হচ্ছে করোনার কারণে একবেলা অনুশীলন করতে পারছি। করোনা শেষ হলে আশা করি টাইমিংটা ভালো দেখতে পাবেন।’

এদিকে ২০১৩ সালের অষ্টম বাংলাদেশ গেমসে তৎকালীন ট্র্যাকে রানী নাজমুন নাহার বিউটির কাছে হেরে রৌপ্য পদক নিয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছিল শিরিনকে। যে স্বর্ণপদকটি এবার নিজের করে নিলেন শিরিন।

এই ইভেন্টে ১১.৭০ সেকেন্ডে সেনাবাহিনীর শরীফা খাতুন রৌপ্য এবং ১২.১০ সেকেন্ডে ব্রোঞ্জপদক জেতেন বিকেএসপির সোনিয়া আক্তার।

শিরিন বলেন, ‘বাংলাদেশ গেমসে এটা আমার প্রথম স্বর্ণ জয়। এর আগে অষ্টম বাংলাদেশ গেমসে বিউটি আপার কাছে হেরে দ্বিতীয় হয়েছিলাম। আমার স্বর্ণ জয়ের পেছনে অবদান বাংলাদেশ নৌবাহিনী, ফেডারেশন এবং বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের (বিওএ)।

সর্বোপরি আমি বিকেএসপি থেকে ট্রেনিং করি। যত রকম সুযোগ-সুবিধা সব তারা আমাকে করছে। আমার কোচ আব্দুল্লাহ হেল কাফি অনেক পরিশ্রম করছেন।’