বাংলাদেশ ৫৭ বলে অল আউট

37

স্পোর্টস ডেস্ক :

তিন ম্যাচ সিরিজের শেষ টি-২০তে মুখোমুখি হয়েছিল নিউজিল্যান্ড ও বাংলাদেশ। বৃষ্টির কারণে কার্টেল ওভারের ম্যাচে লজ্জার ষোলোকলা পূর্ণ করে হেরেছে টাইগাররা। ব্যাট হাতে যে ১০ ওভারও টিকতে পারেনি লাল সবুজরা!

অকল্যান্ডের ইডেন পার্কে প্রথমে ব্যাট করে ১০ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ১৪১ রান করে নিউজিল্যান্ড। জবাবে বাংলাদেশ ৯.৩ ওভারে অল আউট হওয়ার আগে করতে পারে ৭৬ রান। হার মানে ৬৫ রানে।

বাংলাদেশের হয়ে রান তাড়া করতে নামেন নাঈম শেখ ও সৌম্য সরকার। প্রথম ওভারেই টিম সাউদির বলে সাজঘরে ফেরেন সৌম্য ও লিটন দাস। প্রথমজন ১০ রান করলেও পরেরজন রানের খাতাই খুলতে পারেননি। অধিনায়ক হিসেবে অভিষেক হওয়া ম্যাচটি গোল্ডেন ডাক মেরেই স্মরণীয় করে রাখেন লিটন।

সেই শুরুর পর ব্যাটসম্যানদের আসা যাওয়ার মিছিল আর বন্ধ হয়নি। নাঈম (১৯) ও মোসাদ্দেক সৈকত (১৩) ছাড়া কেউই দুই অংকের ঘরে রান করতে পারেননি। ব্যাটসম্যানদের মাঝে যেন কে কত আগে সাজঘরে ফিরতে পারেন সেই প্রতিযোগিতায় নেমেছিলেন সবাই।

শেষ দিকে টিকে থাকার চেষ্টাও করেননি কোনো ব্যাটসম্যান। মাত্র ২ ওভার বল করে একাই ৪ উইকেট নেন এ ম্যাচে সুযোগ পাওয়া নাথান অ্যাস্টল। টিম সাউদি নেন ৩ উইকেট।

এর আগে টস জিতে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেন বাংলাদেশ অধিনায়ক লিটন দাস। তার সিদ্ধান্তটি যে ভুল ছিল সেটা প্রমাণেই যেন মাঠে নামেন নিউজিল্যান্ডের দুই ওপেনার মার্টিন গাপটিল ও ফিন অ্যালেন। একেরপর এক বাউন্ডারি আর ওভার বাউন্ডারিতে বিদ্যুৎগতিতে রান তুলতে থাকেন দুজন।

বাংলাদেশি ফিল্ডাররা এ ম্যাচেও ক্যাস মিসের মহড়া বজায় রেখেছিলেন। সেই সুযোগে আরও আক্রমণাত্মক খেলতে থাকেন গাপটিল ও অ্যালেন। দুজনের উদ্বোধনী জুটিতে ৩৪ বলে আসে ৮৫ রান। সাজঘরে ফেরার আগে গাপটিল ১৯ বলে ৪৪ রান করেন। তার জায়গায় নামা গ্লেন ফিলিপস করেন ১৪ রান।

ক্যারিয়ারের প্রথম অর্ধশতক তুলে নেয়া অ্যালেন শেষ ওভারে আউট হওয়ার আগে করেন ৭১ রান। মিচেল ১১ রানে অপরাজিত থাকেন। বাংলাদেশের হয়ে একটি করে উইকেট নিয়েছেন তাসকিন, মাহেদী ও শরিফুল ইসলাম। নিউজিল্যান্ড ইনিংসে টাইগাররা ক্যাচ মিস করেছে পাঁচটি!