চিরনিদ্রায় শায়িত হবেন কবরী

বাংলা চলচ্চিত্রের বিখ্যাত অভিনেত্রী, নির্মাতা ও সাবেক সংসদ সদস্য সারাহ বেগম কবরীকে বাদ জোহর বনানী কবরস্থানে দফন করা হবে।

শনিবার (১৭ এপ্রিল) সকালে কবরীর ছেলে শাকের চিশতী বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

শুক্রবার (১৬ এপ্রিল) দিবগত রাত ১২টা ২০মিনিটে রাজধানীর শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার হাসপাতালে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন কবরী। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭০ বছর।

কবরীর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শোকবার্তায় রাষ্ট্রপতি বলেন, কবরী ছিলেন বাংলা চলচ্চিত্রের এক উজ্জ্বল নক্ষত্র। তার মৃত্যু দেশের চলচ্চিত্র অঙ্গনের জন্য এক অপূরণীয় ক্ষতি। বাংলা চলচ্চিত্রের বিকাশে তার অবদান মানুষ আজীবন শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, এদেশের চলচ্চিত্রে কবরী এক উজ্জ্বল নক্ষত্র। অভিনয়ের পাশাপাশি রাজনীতি ও সংস্কৃতি অঙ্গনে তার অবদান স্মরণীয় হয়ে থাকবে।

রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী মরহুমা সারাহ বেগম কবরীর রুহের মাগফিরাত কামনা করেন এবং তার শোক-সন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

গত সাতদিন শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন ছিলেন এই অভিনেত্রী। শারীরিক অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছিলেন ছেলে শাকের।

জাগরণ অনলাইনকে শাকের বলেছিলেন, ‍“মায়ের অবস্থা খুব খারাপ। যেকোনো সময় খারাপ কিছু ঘটে যেতে পারে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। আমাদেরকে মানসিকভাবে প্রস্তুত থাকতে বলা হয়েছে। সৃষ্টিকর্তার ওপর ভরসা করা ছাড়া উপায় নেই।”

এরআগে বৃহস্পতিবার (১৫ এপ্রিল) বিকেলে কবরীকে লাইফ সাপোর্ট নেওয়া হয়। তার ফুসফুসের অবস্থা ভালো নয় বলে জানান শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক ফারুক আহমেদ।